শুক্রবার, ১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

প্রাচীন প্রথা মেনে সুন্দরবনের বেশ কিছু জায়গায় পালিত হচ্ছে রথ উৎসব

News Sundarban.com :
জুলাই ১, ২০২২
news-image

ঝোটন রয়, সুন্দরবন: মারন ভাইরাস করোনার প্রকোপে দুই বছর বন্ধ ছিল জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা উৎসব। কিন্তু হিন্দু শাস্ত্র মতে গত দুই বছরে রথযাত্রার নিয়ম মেনে পুজো অর্চনা হলেও তেমন ধুমধাম করে কোথাও রথযাত্রা উৎসব পালন হয়নি। কিন্তু এই বছর অর্থাৎ ২০২২ এর রথযাত্রা উৎসব সম্পূর্ণ আলাদা। বলতে গেলে অন্যান্য বছরের মতো জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রা পূজো পাচ্ছে।

পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে এই বছর পূজো হচ্ছে কঠোর বিধি নিষেধ মেনে। সেই মতে আমাদের দেশের বিভিন্ন রাজ্যে সারম্ভে পালিত হচ্ছে রথযাত্রা উৎসব।

কালের বিবর্তনে সুন্দরবনের বেশ কিছু জায়গায় পুরনো রীতিনীতি ও প্রাচীন প্রথা মেনে এই রথযাত্রা উৎসব পালন হয়ে থাকে। কিন্তু বর্তমান সমাজব্যবস্থার বেশ কিছু জায়গায় নতুনভাবে নতুন রূপেও রথযাত্রা উৎসব পালন হচ্ছে। যেমন নামখানা ব্লকের শিবরামপুর গ্রামের দাশেরলাট ঘেরিতে। এখানে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকে কচিকাঁচাদের উদ্যোগে মূলত এই রথযাত্রার উদ্বোধন। ফলে এটি এবছর নতুনভাবে রথযাত্রা উৎসব পালন হচ্ছে।

নামখানা ব্লকের প্রাচীন প্রথা মেনে পুজো হচ্ছে বেশ কিছু জায়গায় যেমন সাত মাইল বাজার, নতুন বাজারের রথ, মৌসুনি দ্বীপের বাগডাঙ্গা, পাথর বাজার, বাসন্তী এবং ক্যানিং বাজার সহ গঙ্গাসাগরের বঙ্কিমনগর বাজারের মতো বেশ কিছু পুরনো আমল থেকে এই রথ উৎসব পালন হয়ে আসছে।

নামখানা ব্লকের নতুন বাজার রথের সারথি বিদ্যুৎ কুমার দিন্দা বলেন, তখনকার সময়ের প্রাচীন প্রথা মেনে এই রথ উৎসব পালন হচ্ছে। গত বছর কেবলমাত্র পূজা অর্চনার মধ্যদিয়ে রথ উৎসব হলেও। এ বছর কিন্তু রথ উৎসব সম্পূর্ণভাবে জাঁকজমক ও নতুন আঙ্গিনায় রূপ দেওয়া হচ্ছে।

অন্যদিকে মৌসুমী দ্বীপের বাগডাঙ্গা বাজারে সার্বজনীন রথ উৎসব পালন হয়ে আসছে 1985 সাল থেকে। এই প্রসঙ্গে রথের অন্যতম সদস্য সহদেব মাইতি বলেন, এ বছরও আমাদের মৌসুমীতে রথ টানা হবে। প্রায় তিন থেকে চার হাজার মানুষের সমাগম ঘটে। আমাদের এই বাগডাঙ্গা বাজারে এ বছর আমরা রথের প্রসাদ হিসেবে রেখেছি খিচুড়ি।