শুক্রবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রতিবন্ধীদের হাতে রাখী পরালেন অপর প্রতিবন্ধী এক যুবক

News Sundarban.com :
আগস্ট ২২, ২০২১
news-image

বিশ্লেষণ মজুমদার, ক্যানিং – শনিবার।সবে মাত্র ঘড়ির কাঁটা টিকটিক করে রাত ৬:৩২ মিনিটে ঘর অতিক্রম করে এগিয়ে চলেছে।সেই সময় রাতের অন্ধকারে দুটি ক্রাচে ভর করে রাজপথে বেরিয়ে পড়েছেন খোকন মন্ডল নামে এক প্রতিবন্ধী যুবক। গন্তব্য ক্যানিং ও বাসন্তী ব্লকের বিভিন্ন গ্রাম।আচমকা রাতের অন্ধকারে প্রতিবন্ধী ঝুমা, সোমা, অশোক, দীপু, পালান’দের বাড়িতে গিয়ে কড়া নাড়া দিয়ে ডাকলেন। একে একে করোনা বিধি মেনে তাদের হাতে তুলে দিলেন মাস্ক। পরে ভ্রাতৃত্ববোধ আরো গাঢ় করে সম্পর্ক অটুট রাখতে কারোর বাম হাতে কারোর বা ডান হাতে বেঁধে দিলেন রাখী। মুখে তুলে দিলেন স্নেহের মিষ্টি। একে একে করে ক্যানিং ও বাসন্তী এলাকার প্রায় ৭০ জন প্রতিবন্ধীর হাতে রাখী পরিয়ে দিলেন প্রতিবন্ধী যুবক খোকন মন্ডল।

হঠাৎ কেন এমন উদ্যোগ? এমন প্রশ্নের জবাবে খোকন জানিয়েছে “সমাজে যে কোন ক্ষেত্রে আমরা প্রতিবন্ধীরা অবহেলিত,বঞ্চিত। শোষিত এবং নিপীড়িত। সমাজের সাধারণ মানুষজন আমাদের কে একটু ট্যারা চোখে দেখেন।এছাড়াও রাখী বন্ধন কি?সেটা সস্পর্কে অনেক প্রতিবন্ধী জানে না। কিংবা তার ভাগ্যে আজও অবধি রাখী পরা হয়ে ওঠেনি।আবার এমন কি অনেকের ভাই কিংবা বোন না থাকায় এমন রাখী পূর্ণিমার দিন হতাশ হয়ে কাটিয়ে দিতে হয়।এমন সব অবসাদ এবং মনের সঙ্কীর্ণতা থেকে উদ্বুদ্ধ করতে আমার মতো প্রতিবন্ধী ভাইবোনেদের হাতে রাখী পরিয়ে রাখী বন্ধন উৎসব পালন করবো আগে থেকেই পরিকল্পনা করেছিলাম।সেটা শনিবার রাতে পূর্ণিমা লাগার সাথে সাথে পালন করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।

তাছাড়াও সমাজের বুকে বার্তা দিতে চাই আমরা প্রতিবন্ধীরা সমাজের কোন অংশে ফেলনা নয়। বরং আর পাঁচ জনের মতো আমরা ও সমান।”

অন্যদিকে ঝুমা, সোমা, বিপাশা, অলোকা, রুবিনা, মাধবীরা জানিয়েছে “আমাদের কোন ভাই নেই। তাই জানতাম যাদের কোন ভাই নেই তাদের আর রাখী পরা হবেনা।

এছাড়াও আমরা প্রতিবন্ধী হওয়ায় সমাজে অনেকটা পিছিয়ে। তাই এমন সব আশা করা মানে বামন হয়ে চাঁদ ধরার গল্প। কিন্তু বাস্তবতা কে চোখে আঙুল দিয়ে আচমকা খোকন’দার মতো একজন প্রতিবন্ধী যুবক বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে গিয়ে যে ভাবে অন্যান্য প্রতিবন্ধীদের হাতে রাখী পরিয়ে দিলেন তা কোন প্রকার প্রশংসা তার পক্ষে যথেষ্ট নয়।খোকন ’দা আমাদের আগামী দিনের অনুপ্রেরণা।“