মঙ্গলবার, ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

২৬০০০ মানুষের পাশে নামখানা ব্লকের বিবেকানন্দ ওয়েলফেয়ার সোসাইটি

News Sundarban.com :
জুন ২৬, ২০২১
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, নামখানা: নামখানা ব্লকের দক্ষিণ চন্দনপিড়ি বিবেকানন্দ ওয়েলফেয়ার সোসাইটি ২০০৮ সালে সুন্দরবনের সুবিধাবঞ্চিত ও আর্থ সামাজিকভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়৷ এই সংস্থাটি করোনা ওয়ারিয়র এবং আম্ফান ত্রাণের জন্য বিশেষ স্বীকৃতি অর্জন করেছিল। গত দেড় বছর কোভিড ১৯ মহামারী পরিস্থিতির মাঝে, সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় YAAS এবং ফলস্বরূপ ফ্লাড প্রভাবিত অঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগকে চূড়ান্ত পরিণতিতে পরিণত করেছে। এই পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্থদের বিশেষত নামখানা, কাকদ্বীপ এবং পাথরপ্রতিমা এলাকার সুন্দরবনের মানুষদের যেখানে দুর্ভোগ সবচেয়ে বেশি সেখানে এই সংস্থা ছুটে গেছে, এবং কাজ করছে। ইয়াস-পরবর্তীতে বিভিন্ন সংগঠন ও বিশেষ ব্যক্তি দক্ষিণ চন্দনপিড়ি বিবেকানন্দ ওয়েলফেয়ার সোসাইটিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।

যাদের মধ্যে অন্যতম হল রোটারি ক্লাব চন্দননগর, ফিউচার হোপ ইন্ডিয়া, অভিনেত্রী পিয়ালী বসুর হেল্পিং হ্যান্ড, বর্ধমানের রেনেসাঁসের নাগরিকবৃন্দ, হিউম্যান গ্রোভ, মিষ্টি ম্যাজিক, স্বপ্ন দেখার উজান গাং, PASE, ওমেন্স ব্রিজ, বিভিন্ন শিক্ষক সঙ্গঠন ও প্রাণী চিকিৎসক, বিজ্ঞানীরা।

সংগঠনের সম্পাদক অধ্যাপক ড. শান্তনু বেরা বলেন, এখনো অব্দি প্রায় ২৬০০০ মানুষকে দুপুরের আহার, ৩০০০ মানুষকে রাতের আহার, ৮০০ জনকে শুকনো খাবার, ৩৫০ জন এডোলসেন্ট মহিলাদের কিট, ১৬০ জন ২ বছরের নিম্নের শিশুদের ও ৫০ জন ছাত্র ছাত্রীদের পড়াশোনার সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে এলাকা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, প্লাস্টিক মুক্ত করতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে এই সংগঠন।

তিনি আরো বলেন, শুধু ত্রাণ নয় নদী বাঁধ মেরামতি, ম্যানগ্রোভ লাগানো ও সুন্দরবনের মানুষের জীবন জীবিকার কথাও ভাবতে হবে বেশি করে। এজন্য রোটারি ক্লাব, হিউম্যান গ্রোভ ও নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের সহায়তায় কিছু ট্রেনিং ও জীবন জীবিকা মুখী কিছু প্রোগ্রাম অতিসত্তর নেওয়া হচ্ছে। সরকারি তরফেও সাহায্যের জন্যও আবেদন করা হবে বলে উনি জানান।