মঙ্গলবার, ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নামখানা ব্লকে ইয়াস বিধ্বস্ত অঞ্চল পরিদর্শনে স্টেট কো-অপারেটিভ ব্যাংকের আধিকারিক গণ

News Sundarban.com :
জুন ৩, ২০২১
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের পরবর্তী পরিস্থিতি পরিদর্শনে জেলা সফরে এলেন ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট কো-অপারেটিভ ব্যাংকের সাউথ রিজিয়নের রিজিওনাল ম্যানেজার আর এম সুভাষ মন্ডল ও এফইও অরূপ রায় এবং প্রাক্তন ডি আর সি এস তথা পরামর্শ উপদেষ্টা দীপক হালদার।

সুন্দরবনের মাটির সাথে নাড়ীর টান। তাই সুন্দরবনবাসীর বিপদে আপদে ছুটে আসেন।

বুধবার দুপুর সাড়ে বারোটায় প্রথমে নামখানা ব্লকের সাতমাইল শিবরামপুর সমবায় সমিতিতে আসেন। সেখান থেকে টোটোয় করে এলাকা পরিদর্শনে বের হন।

ঘুরে দেখলেন দক্ষিণ সুন্দরবনের নামখানা ব্লকের শিবরামপুর গ্রামপঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকা। দেখলেন চীনাই নদীর নদীবাঁধ ভাঙন।

বিশ্বের বৃহত্তম ব-দ্বীপ সুন্দরবন। ৫০ লক্ষের ও বেশী মানুষের বসবাস এই বৃহত্তম দ্বীপে। প্রতিমুহূর্তে প্রাকৃতিক বিপর্যয় কে সামাল দিয়ে বসবাস করতে হয় সুন্দরবনের বাসিন্দাদের।প্রাকৃতিক ঝড়ঝঞ্ঝার এর পাশাপাশি জীবন বিপন্ন করে জীবীকা নির্বাহ করতে হয়।

২৬ মে ইয়াসের তান্ডবে চীনাই নদীর প্রায় দুই কিলোমিটার নদীবাঁধ ভেঙে যাওয়ায় এলাকার মানুষ আজও বিপন্ন। নদীর লবণাক্ত নোনাজলে নিমজ্জিত সমগ্র এলাকা। অসহায় আশ্রয়হীন বিপন্ন মানুষ খোলা আকাশের নীচে এখনো বসবাস করছেন। অসহায় মানুষের সাথে একান্তে কথা বলেন। শোনেন তাঁদের সুবিধা অসুবিধার কথা। এলাকাগুলির বাস্তব চিত্র সরেজমিনে খতিয়ে দেখেন।

সঙ্গে ছিলেন শিবরামপুর সমবায় সমিতির প্রাক্তন ম্যানেজার রতন চন্দ্র করন, উপস্থিত ছিলেন শিবরামপুর সমবায় সমিতির প্রাক্তন সম্পাদক পুলিনবিহারী দাস, অনুপ দাস, পুলকেশ কামিলা, বারিদ বরণ দাস, বিশ্বজিৎ মন্ডল, অমিত মাইতি এবং পাতিবুনিয়া সমবায় সমিতির ম্যানেজার বিশ্বজিৎ জানা।

উল্লেখ্য, গত ২০০৯ সালের ২৫ মে ভয়ঙ্কর আয়লার ঝাপটায় তছনছ হয়ে গিয়েছিল সুন্দরবনের জনপদ। পাশাপাশি ২০১৯ এর ২ মে সামান্য দাপট দেখিয়ে ক্ষয়ক্ষতি করেছিল ফণী। আবার ২০১৯ এর ৮ নভেম্বর বুলবুল কোন বাধা না মেনে সজোরে দাপট দেখিয়ে হানা দিয়েছিল সুন্দরবনে। আবার ২০২০ তে আমপানে বাড়িঘর, গাছপালা ভেঙে ধুলিস্যাত করে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে দিয়েছিল।বারবার প্রাকৃতিক দুর্যোগে অস্তিত্ব সংকটে সমগ্র সুন্দরবন। সেইসব ক্ষত এখনও অবধি শুকায়নি।

এতো সব প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে ২০২০ মার্চ মাসে আবার থাবা বসিয়েছে অদৃশ্য মহামারী ভাইরাস করোনা। এই ভাইরাসে জর্জরিত গোটা পৃথিবী সহ বৃহত্তম এই ব-দ্বীপ সুন্দরবনও। অদৃশ্য ভাইরাস আটকাতে শুরু হয়েছে লকডাউন। বাঁচার জন্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ আর মহামারী ভাইরাসের সাথে সুন্দরবনের বাসিন্দারা যখন সমানতালে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তখনই অদৃশ্যের কালো মেঘের মতো ভীতীর সঞ্চার জাগিয়ে ধেয়ে এল প্রাকৃতিক ঘুর্ণিঝড় ইয়াস।