শনিবার, ২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ভাঙা পায়েই খেলা হবে, চ্যালেঞ্জ মমতার

News Sundarban.com :
মার্চ ১৫, ২০২১
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্ক:  বিজেপি হঠাও, দেশ বাঁচাও। আমাকে আক্রমণ করলে মা-বোনেরা হাতা-খুন্তি নিয়ে জবাব দেবে। বিজেপির কথায় ভুল বুঝে ওদের নির্বাচিত করেছেন, ওদের অভ্যাস প্রতিদিন বাংলাকে কুৎসা, অপপ্রচার করছে। কৃষকদের আন্দোলন রুখতে পেরেক পুঁতে দেওয়া হয়েছে। বলরামপুরের জনসভা থেকে কেন্দ্রকে কটাক্ষ মমতার।
আমার থেকে মানুষের যন্ত্রণা বেশি। আমি স্ট্রিট ফাইটার। বললেন মমতা। অনেক মার খেতে খেতে এই জায়গায় এসেছি। আমি ভাঙি তবু মচকাই না। বললেন মমতা। আমার কাজে দুঃখ পেলে ক্ষমা করে দেবেন।

বিজেপির কথায় ভুল বুঝে ওদের নির্বাচিত করেছেন, ওদের অভ্যাস প্রতিদিন বাংলাকে কুৎসা, অপপ্রচার করছে। কৃষকদের আন্দোলন রুখতে পেরেক পুঁতে দেওয়া হয়েছে। ২ বছর আগে জিতে গেছে বিজেপি, ১৮ জন এমপি আবার এমএলএ ভোটে দাঁড়িয়েছে।  এমপি হয়ে ভরাডুবি, এমএলএ হয়ে বাজাবে ডুগডুগি, বিজেপিকে আক্রমণ মমতার।
সেল বিক্রি করে দিচ্ছে, কোল বিক্রি করে দিচ্ছে, কোল মাইন, ইসিএল বন্ধ হয়ে গেলে সমস্ত কর্মীরা কোথায় যাবে। দেশটাকে সর্বনাশের পথে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, এরা অত্যাচারী সরকার। কাজ নেই কর্ম নেই শুধু মিথ্যা কথা বলে। এরা রথযাত্রা করছে, এদের রথযাত্রায় বিজেপি নেতারা খাচ্ছে-দাচ্ছে-ঘুরে বেড়াচ্ছে। দেশের প্রধানমন্ত্রী এত বড় মিথ্যাবাদী কোথাও পাবেন না। বছরে দু’বার করে দুয়ারে সরকার কাজ করবে।
আগে এসে দেখতাম মানুষ রাস্তায় বেরোতে ভয় পেত, মা-বোনেরা শান্তিতে চলতে পারেন। এতদিন পুরুলিয়ার দিকে কেউ তাকায়নি, এখন পুরুলিয়ায় রাস্তা, মেয়েরা কন্যাশ্রী পাচ্ছে। রঘুনাথপুরে ৬৪ হাজার কোটির শিল্প তৈরি করছি, জঙ্গলমহল শিল্পনগরী তৈরি করছি। হাজার হাজার ছেলেমেয়ের চাকরি হবে। জানালেন মমতা। পুরুলিয়ার মাটি শুকনো, সেখানে কীভাবে চাষ করা যায় তার জন্য মাটির সৃষ্টি প্রজেক্ট করছি। কুর্মি ভাষাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে, মানভূমি সংস্কৃতি অ্যাকাডেমি তৈরি হয়েছে।
করোনার সময় কাউকে সাহায্য করেনি, আমি ঝাড়খণ্ড থেকে তাদের নিয়ে এসেছি, ৩০০ ট্রেনের ভাড়া দিয়েছি। ৪ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিককে ২ হাজার টাকা দিয়েছি। গণতন্ত্রের সব পথ বন্ধ। মিডিয়ার মুখ বন্ধ। গণতন্ত্রের ব্যথা সব থেকে বড় ব্য়থা। আজ বুঝবেন না। কাল বুঝবেন কোনওভাবে। আমরা থাকবই। মানুষের কাজ করাই আমাদের লক্ষ্য।
টাকা দিলেও ভোট দেবেন না, টাকা দেওয়াটা অন্যায়। দিল্লি দখল করে দেশটার শেষ করে দিয়েছে, সব বিক্রি করে দিচ্ছে। বিমায় হাত দিয়েছে, বেসরকারিকরণ করতে চাইছে। কৃষকরা বছরে ৬ হাজার টাকা পাচ্ছে, খাজনা মকুব করে দিয়েছি, সবাইকে নিয়ে আমরা কাজ করি। বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভাঙা পায়েই খেলা হবে। চ্যালেঞ্জ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।