মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাসন্তী ব্লকে অনুন্নত তপশিলীদের স্বনির্ভর করতে রঙিন মাছের পোনা বিতরণ

News Sundarban.com :
নভেম্বর ৯, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্ক:   দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার প্রত্যন্ত সুন্দরবনের পিছিয়েপড়া অন্যতম ব্লক বাসন্তী।বাসন্তী ব্লকে প্রায় তিন লক্ষের অধিক মানুষের বসবাস। এই বাসন্তী ব্লকের অধিকাংশ তপশিলী জাতি ও উপজাতি এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায় মানুষের বসবাস।এই সুন্দরবনের বাসন্তী ব্লকের অধিকাংশ মানুষজন কৃষিজীবী। পাশাপাশি সুন্দরবনের নদীখাঁড়ি তে মাছ কাঁকড়া,জঙ্গলের মধু এবং কাঠ সংগ্রহ করে জীবন জীবীকা নির্বাহ করে থাকেন।এরই মধ্যে আয়লা,ফণি,বুলবুল এবং আম্ফানের মতো সাইক্লোন বয়ে যাওয়ায় ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছে সমগ্র সুন্দরবন সহ বাসন্তী ব্লক।

অর্থনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পড়েছেন বাসন্তী ব্লকের অধিকাংশ তপশিলী জাতি ও উপজাতি এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায় অসহায় পরিবারের মানুষজন।পাশাপাশি করোনা তান্ডবেও জর্জরিত সুন্দরবনে মানুষজন।এমনই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে সুন্দরবনের বাসন্তী ব্লকের তপশিলী সম্প্রদায়ের মানুষজন সর্বোত ভাবে অসহায় হয়ে পড়েছেন।করোনা পরিস্থিতিতে সুন্দরবনের বাসন্তী ব্লকের অসহায় তপশিলী জাতি ও উপজাতি সম্প্রদায়ের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি মন্ত্রালয়ের অধিনস্থ অন্তর্স্থলীয় মৎস্য অনুসন্ধান সংস্থা(ব্যারাকপুর)।

কুলতলি মিলনতীর্থ সোসাইটির সহযোগিতায় এবং অন্তর্স্থলীয় মৎস্য অনুসন্ধান সংস্থার(ব্যারাকপুর) উদ্যোগে বাসন্তী ব্লকের কুলতলিতে এক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে এলাকার ৫৫ জন তপশিলি জাতি ও উপজাতি সম্প্রদায় মহিলাদের হাতে রঙীন মাছ সহ চাষের সমস্ত উপকরণ তুলেদেন। উপস্থিত ছিলেন অন্তর্স্থলীয় মৎস্য অনুসন্ধান সংস্থার(ব্যারাকপুর) ডাইরেক্টর ডঃ বসন্ত কুমার দাস,মূখ্য প্রযুক্তি আধিকারীক ডঃ সঞ্জয় ভৌমিক,কুলতলি মিলনতীর্থ সোসাইটির কর্ণধার লোকমান মোল্লা সহ অন্যান্য বিশিষ্টরা।

সোমবার দুপুরে অনুষ্ঠান শেষে ডঃ বসন্ত কুমার দাস বলেন ‘সুন্দরবনের বাসন্তী ব্লক সহ অন্যান্য ব্লকের তপশিলি জাতি ও উপজাতি সম্প্রদায়ের মানুষ যাতে করে স্বনির্ভর হয়ে অর্থনৈতিকভাবে স্বালম্বী হতে পারে তার জন্য প্রাথমিক ভাবে এমন উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। ’
অন্যদিকে সমাজসেবী লোকমান মোল্ল্যা বলেন ‘অন্তর্স্থলীয় মৎস্য অনুসন্ধান সংস্থার(ব্যারাকপুর)সুন্দরবনের তপশিলি জাতি ও উপজাতি সম্প্রদায়ের মানুষের জীবন জীবীকার অগ্রগতির জন্য যে উদ্যোগ নিয়েছে তা আগামী দিনে সুন্দরবনের বুকে প্রষ্ফুটিত হয়ে নবদিগন্ত ইতিহাস সৃষ্টি হবে। ‘