বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

করোনা যোদ্ধাদের সাহায্যে এগিয়ে এলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী

News Sundarban.com :
জুলাই ৩০, ২০২০
news-image

বিশ্লেষণ মজুমদার, ক্যানিং 

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের শুরু থেকেই ফ্রন্ট লাইনে দাঁড়িয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মৃত্যুকে উপেক্ষা কাজ করে চলেছেন স্বাস্থ্যকর্মী থেকে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা।করোনা আবির্ভাবের শুরু থেকেই এই সমস্ত করোনা যোদ্ধারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ময়দানে নেমে কাজ না করলে করোনা আবহে দেশে বর্তমানের তুলনায় আরো ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরী হতো।

যদিও ইতি মধ্যে সাধারণ মানুষের সেবায় এই সমস্ত করোনা যোদ্ধারা ফ্রন্ট লাইনে দাঁড়িয়ে সেবামূলক কাজ করায় বেশ কিছু করোনা যোদ্ধা আত্ম বলিদান দিয়েছেন সাধারণ মানুষের সেবায় নিজেদের কে নিয়োজিত করে। তা স্বত্বে ও এই সমস্ত করোনা যোদ্ধাদের প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে।এতো সবের মধ্যেও এই সমস্ত করোনা যোদ্ধাদের নিরাপত্তা কোথাও যেন মাঝে মাঝে বিঘ্নিত হচ্ছে।এসবের মাঝে সুন্দরবনে ভয়ঙ্কর ভাবে দাপট দেখিয়েছে সুপার সাইক্লোন আম্ফান ঝড়। আম্ফানে নিজেরা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও সাধারণ মানুষের সেবায় অবিচল থেকেছেন করোনা যোদ্ধারা।বিগত ২০ মে আম্ফানের তান্ডবে সমগ্র সুন্দরবন তছনছ হয়ে গিয়েছিল। সেই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকার তড়িঘড়ি সুন্দরবন বাসীদের জন্য কুড়ি হাজার টাকা করে পরিবার পিছু ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছিলেন।অভাব অভিযোগ থাকলেও অধিকাংশ ক্ষতিগ্রস্ত মানুষজন ক্ষতিপূরণের টাকা ইতিমধ্যে পেয়ে গেছেন। এমন কি নিজেদের ক্ষয়ক্ষতি প্রায় সারিয়ে আবার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরেছেন। এমত অবস্থায় বাসন্তী থানা চত্বরে পানীয় ও স্নানের ব্যবহৃত জলের শেড আম্ফান ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ভেঙে পড়েছিল।তা আজও সরকারী ভাবে সারানোর কোন উদ্যোগ দেখা যায়নি। ফলে খোলা আকাশের নীচে পানীয় জল এবং স্নানের জল থাকায় গাছের পাতা,পাখির বিষ্ঠা পড়ে দুষিত হলেও সেই দুষিত জল বাসন্তী থানার পুলিশ কর্মী ও থানায় আগত সাধারণ মানুষজন ব্যবহার করছিলেন। এক কথায় যাঁরা সাধারণ মানুষের জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন তাঁরাই রয়েছেন অসহায় ভাবে।

এমন অসহায় পরিস্থিতির কথা জানতে পেরে করোনা যোদ্ধাদের কে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেন সুন্দরবনের বিশিষ্ট সমাজসেবী তথা সুন্দরবনের কবি ফারুক আহমেদ সরদার। তিনি উদ্যোগ নিয়ে বাসন্তী থানার পুলিশ কর্মীদের সাথে খোলা আকাশের নীচে থাকা স্নান ও পানীয় জলের বিষয় টি আলাপ আলোচনা করেন। বুধবার সকালে সমাজসেবী নিজেই উদ্যোগ নিয়ে বাসন্তী থানা চত্বরে থাকা ভাঙা পানীয় জল ও স্নানের শেড পুরোপুরি সংস্কার করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।এমন কাজে পাশে পেয়ে যান কয়েকজন সহৃদয় ব্যাক্তিকেও।স্নান ও পানীয় জলের শেড টি পুরোপুরি সংস্কার হওয়ায় খুশি বাসন্তী থানার পুলিশ কর্মী থেকে সাধারণ মানুষজন।
সমাজসেবীর এমন কাজ কে সাধুবাদ জানিয়ে বাসন্তী থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারী বিশ্বজিত ঘোষ বলেন “অক্লান্ত পরিশ্রম করে পুলিশ ২৪ ঘন্টা সাধারণ মানুষের সেবায় নিয়োজিত রেখেছেন।সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে সমাজসেবী ফারুক আহমেদ সরদার পুলিশের প্রতি আস্থা রেখে এমন সমাজসেবা মূলক কাজে এগিয়ে আসায় খুশি।”
অন্যদিকে সমাজসেবী তথা সুন্দরবনের কবি ফারুক বলেন “ব্যবহৃত জল যদি হয় নিরাপদ,থাকবে না কোন রোগের বিপদ।ফলে যাঁরা আমাদের জন্য জীবনের মায়া ত্যাগ করে ২৪ ঘন্টা কাজ করে চলেছেন। তাঁরাই রয়েছেন চরম বিপদের মধ্যে। এমন টা জানতে পেরে পানীয় ও স্নানের জলের শেড টি সংস্কারের উদ্যোগ নিয়ে সংস্কার করেদিয়েছি।”