বুধবার, ১৫ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

জেলা জুড়ে চলছে স্পর্শ কুষ্ঠ সচেতনতা অভিযান

News Sundarban.com :
ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২০
news-image

ক্যানিং – রাজ্য কুষ্ঠ-বিভাগ,রাজ্য ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ সমিতির(কুষ্ঠ বিভাগ)উদ্যোগে শুরু হয়েছে একপক্ষ কালের স্পর্শ কুষ্ঠ সচেতনতার প্রচার অভিযান।৩০জানুয়ারী থেকে ১৩ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত জেলার সর্বত্র এমন প্রচার চলবে বলে জানা গেছে।বিভিন্ন মাধ্যমে হাসপাতাল সহ ক্যানিং মহকুমা এলাকায় প্রচার অভিযান শুরু করেছে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতা কর্তৃপক্ষ।
উল্লেখ্য কুষ্ঠ একটি বহু প্রাচীন রোগ এবং জীবানু ঘটিত। দেহের চামড়া এবং প্রান্তিক স্নায়ু আক্রমন করে। কুষ্ঠজীবাণু বায়ুবাহিত,হাঁচি ও কাশীর মাধ্যমে ছড়িয়ে থাকে।প্রাথমিকস্তরে পায়ে দুর্বল অনুভুতি,আঙুলে অসাড়তা,চোখ বন্ধ করতে অসুবিধা,শরীরের কোন অংশে অসাড় দাগ,লালচে ফ্যাকাসে দাগ,বেদনাদায়ক স্নায়ুস্ফীতি,লেপ্র রিয়্যাকশন এর মতো কিছু হলেই কুষ্টরোগের সম্ভবনা। চিকিৎসা সঠিক সময়ে না হলে শরীরের অঙ্গ বিকৃতি,অক্ষমতা লক্ষণ করা যায়। এই রোগ সহজেই ধরা যায়। দেহের মাথা থেকে পা পর্যন্ত এক বা একাধিক ছোট মাঝারী বড় আকারের ফ্যাকাসে লালচে তামাটে রঙের চামড়ার সঙ্গে সমতল বা উঁচু এবং আংশিক বা সম্পূর্ণ অসাড় দাগ কুষ্ঠরোগের লক্ষণ। এছাড়াও কুষ্ঠের দাগে চুলকানি থাকে না,দাগ আসা যাওয়া করে না,দুধ সাদা কিংবা কুঁচকুঁচে কালো হয় না। এই রোগের শ্রেণীবিণ্যাস অনুযায়ী ৬-১২ মাসের চিকিৎসা প্রয়োজন হয় এবং মাত্র একডোজ এম ডি টি ২৪ ঘন্টায় সংক্রামক কুষ্ঠরোগীকে অসংক্রামক করে তোলে। এম ডি টি কুষ্ঠরোগ সারায়,কুষ্ঠ জীবাণু ধ্বংস করে,কুষ্ঠ জীবাণু ছড়ানো বন্ধ করে। প্রতিটি সরকারী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বিনামূল্যে এই চিকিৎসা পাওয়া যায়।লজ্জা,ঘৃণা,ভয় ভুলে কুষ্ঠরোগ মুক্ত সমাজ গড়াই একমাত্র লক্ষ্য।আর সেই লক্ষ্যমাত্রা নিয়েই কুষ্ঠের বিরুদ্ধে অন্তিম লড়াইয়ের মাধ্যমে প্রচার অভিযান শুরু করেছে রাজ্য কুষ্ঠ বিভাগ,রাজ্য ও জেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান দফতর।