বৃহস্পতিবার, ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

গুরুতর জখম মূলতৃণমূল কংগ্রেসের  কর্মী

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯
news-image

২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই আবার বোমাবাজী তে উত্তপ্ত হয়ে উঠলো বাসন্তী।ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে বাসন্তী ব্লকের কাঁঠালবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের খেড়িয়াতে। গুরুতর জখম অবস্থায় সুকান্ত কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র সামাউল মোল্ল্যা ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে এদিন রাতে সামাউল ও তার প্রতিবেশীদের মধ্যে পার্টীর আলোচনা নিয়ে বচসা হয়।অভিযোগ সেই সময় আচমকা রাত আটটার সময় জনা ১৫-২০ যুবতৃণমূল কর্মী সাইফুল মোল্ল্যার নেতৃত্বে খেড়িয়া এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজী শুরু করে।বাড়ীর পাশেই বোমা মারায় সামাউলদের খড়ের গাদায় আগুন ধরে যায়। সেই আগুন নিভাতে গেলে সামাউল কে লক্ষ্য করে বোমা মারে যুবতৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা।সামাউলের মুখে বোমার আঘাত লাগলে চিৎকার করে মাটিতে পড়ে যায়। আরো অভিযোগ এলাকা মুড়ি মুড়কীর মতো প্রায় ১৩ বোমা চার্জকরে রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যায়।সামাউলের পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়।ঘটনার বিষয়ে বাসন্তী ব্লকের মূলতৃণমূল সংগঠনের নেতা মন্টু গাজী বলেন “এলাকায় কোন ভাবে শান্তি ফিরতে দিচ্ছেনা। বিভিন্ন পারিবারিক ঘটনায় তৃণমূলের জার্সি পরে আরএসপি,সিপিএমের হার্মাদ বাহিনী এলাকায় সাধারণ মানুষের উপর গোলাগুলি,বোমাবাজী করে সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে। তিনি আরো বলেন তৃণমূল দল টাকে শেষ করে দেওয়ার জন্য পূর্বপরিকল্পিত ভাবে এমন সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে।

অন্যদিকে স্থানীয় যুবতৃণমূল নেতৃত্ব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে দাবী জামিয়েছেন বাসন্তী খড়িমাচান এলাকায় এক যুবতৃণমূল কর্মীকে গুলি করে খুন করেছে। তারপর দিন আবার এক যুবকর্মীর বাড়ীতে বোমাবাজী করেছে। সেই দোষ চাপা দিতে নিজেরাই বোমাবাজী করে যুবসংগঠন কে দোষারোপ নিজেদের দোষ ঢাকা দিতে চাইছে।

অন্যদিকে বোমাবাজীর খবর পেয়ে বাসন্তী থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। যদিও এই ঘটনা কে বা কারা ঘটিয়েছে সে বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।