মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

অমিত শাহের সভা শুরুর প্রাক্কালেই মুখ্যমন্ত্রীর পোস্টার ঢেকে দেওয়া হল কাপড়ে

News Sundarban.com :
আগস্ট ১১, ২০১৮
news-image

কয়েকদিন ধরেই অমিত শাহের সভাস্থলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হোর্ডিং ও ফ্লেক্স নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। সেই ফ্লেক্স বা ব্যানারে যেন হাত না দেওয়া হয় কিংবা যেন ছিঁড়ে দেওয়া না হয়, তা রুখতে কড়া নির্দেশ পাঠিয়েছিলেন অমিত শাহ। বিষয়টি দিল্লিতে জানানোর পরই অমিত শাহ পাল্টা বার্তা পাঠিয়ে সতর্ক করে দেন বিজেপি নেতৃত্বকে। এদিন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হোর্ডিং-ব্যানার আর ফ্লেক্সে মুড়ে দেওয়া হয়েছিল গোটা মেয়ো রোড, রেড রোড চত্বর। কোথাও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘লহ প্রণাম’, কোথাও ‘বাংলার শত্রু বিজেপি দূর হটো’- এমন ধরনের নানা হোর্ডিং-ফ্লেক্সে ছেয়েছিল এলাকা। শনিবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সভা শুরুর প্রাক্কালেই সেই পোস্টার ঢেকে দেওয়া হল কাপড়ে।
এদিন অমিত শাহের বার্তা পেয়ে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব অভিনব এক সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অমিত শাহের সভা সংলগ্ন রাস্তার দুধারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি সম্বলিত হোর্ডিং ও ফ্লেক্স সবুজ-গেরুয়া কাপড়ে ঘিরে দেওয়া হয়। এর ফলে দু-ধরনের সমস্যা থেকে দূরে রাখা যাবে। বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের কথায়, এক, হোর্ডিংগুলো না খুলেই ঢেকে দেওয়া সম্ভব হল। দুই, কর্মী-সমর্থকরা এই হোর্ডিংগুলো ছিঁড়তেও পারবে না। সবরকম বিতর্ক থেকে দূরে থাকা যাবে। উল্লেখ্য, এর আগেও পোস্টার বিতর্কে পড়তে হয়েছিল বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বকে।
বীরভূমের তারাপীঠেও অমিত শাহের যাত্রাপথ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অনুব্রত মণ্ডলের ফ্লেক্সে ভরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তারপর মেদিনীপুরে নরেন্দ্র মোদীর যাত্রাপথও মমতার ফেস্টুন-হোর্ডিংয়ে ভরিয়ে দেওয়া হয়। এবার পোস্টার বিতর্ক থেকে দূরে তাকতে অভিনব উদ্যোগ নিয়ে সমস্যা সমাধানের চেষ্টায় বিজেপি।

উল্লেখ্য, নিরাপত্তার কারণে অমিত শাহের সভায় অভিমুখ বদল করা হয়। মোদীর সভায় দুর্ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েই বিজেপি সন্তর্পণে এই সভার আয়োজন করছে। যাতে কোথাও কোনও ফাঁকফোকর না থাকে, সে ব্যাপারে শশব্যস্ত বিজেপির বঙ্গ-নেতৃত্ব। এবার অমিত শাহের সভার জন্য রাজ্য প্রশাসনের উপর নির্ভর না করে নিজেরাই সমস্ত ব্যবস্থা করছে বিজেপি।অমিত শাহের সভায় নিরাপত্তার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিজেপির আইপিএস সেলকে। তাঁদের নির্দেশেই সভার অভিমুখ বদল করা হয়েছে। সেইসঙ্গে অমিত শাহের সভার নিরাপত্তায় বজরং দলের ৫০০ স্বেচ্ছাসেবককে রাখা হয়েছে। তাঁরা ওয়াকিটকির মাধ্যমে পুরো বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করবেন।