বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ফের শিরোনামে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়

News Sundarban.com :
জুন ২৫, ২০১৮
news-image

টানাপোড়েন, স্থগিত প্রবেশিকা। ফের শিরোনামে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। দিনক্ষণ ঘোষণার পরও আপাতত বন্ধ কলা বিভাগের প্রবেশিকা। ভর্তির পরীক্ষা নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে। শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দেখছেন পড়ুয়াদের একাংশ। যদিও তা মানতে নারাজ শিক্ষামন্ত্রী। এই টানাপোড়েনে আপাতত অনিশ্চয়তায় পাঁচতারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পর্বে। কলা বিভাগে স্নাতক স্তরে ভর্তির প্রবেশিকা হওয়ার কথা ছিল ৩ থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত। সোমবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিল, নির্ধারিত দিনে হচ্ছে না সেই প্রবেশিকা।
প্রবেশিকা নিয়ে যাদবপুরে টানাপোড়েন দীর্ঘদিনের। তার মধ্যেই ভর্তির পরীক্ষার দিন ঘোষণা হয়। ভর্তির পরীক্ষা হওয়া উচিত কিনা, তা নিয়ে এদিন কর্মসমিতির বৈঠকে আলোচনা হলেও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। ঠিক হয়, এব্যাপারে আইনজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া হবে। ৩ জুলাই যেখানে প্রবেশিকা শুরুর কথা, সেখানে কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন অনেকে।
এবিষয়ে শিক্ষামন্ত্রীর বলেন, প্রবেশিকা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তবে কোনওমতে ভর্তির ক্ষেত্রে মেধার সঙ্গে আপস করা যাবে না। শিক্ষামন্ত্রী এবিষয়ে কোনও নির্দেশ দেননি বলে দাবি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের।
কলেজে কলেজে ভর্তি শুরু হয়ে গিয়েছে। সেখানে পাঁচতারা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরীক্ষা হবে কিনা, তারই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হল না এখনও। এই টানাপোড়েনের মূল্য কেন পড়ুয়াদের দিতে হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। ভর্তি পর্বে দেরি হলে কৃতীরা এখানে আসবে তো? প্রশ্ন উঠছে
সূত্রের খবর, বৈঠকে প্রশ্ন ওঠে, কর্মসমিতির অনুমোদন ছাড়া কেন প্রবেশিকা? এদিন আরও সিদ্ধান্ত হয়, কলা বিভাগের বাংলা, ইংরেজি, তুলনামূলক সাহিত্য, ইতিহাস, দর্শন ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান এই ছ’টি বিভাগে ভর্তির আবেদনের দিনক্ষণ বাড়ানো হয়েছে ২ জুলাই পর্যন্ত। ইতিহাসের ক্ষেত্রে কমানো হয়েছে কাট অফ মার্কস।
প্রবেশিকা-জটিলতায় সরাসরি সরকারের হস্তক্ষেপ দেখছেন পড়ুয়াদের একাংশ। দেওয়া হয়েছে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি।