বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

৪৮ ঘণ্টার ব্যাঙ্ক ধর্মঘটে সাধারণ মানুষের চূড়ান্ত দুর্ভোগ

News Sundarban.com :
মে ৩০, ২০১৮
news-image

মালিকপক্ষ চায়২ শতাংশ বেতন বাড়াতে ,কর্মী সংগঠনগুলো চাইছে অন্তত ৩০ শতাংশ বেতনবৃদ্ধি। বেতনবৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে আজ ও কাল দেশজুড়ে ব্যাঙ্ক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ৯টি ব্যাঙ্কের সম্মিলিত সংগঠন ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাঙ্ক ইউনিয়ন। দু’দিনের ব্যাঙ্ক ধর্মঘটে রাজ্যের বিভিন্ন ব্যাঙ্কের ৯ হাজার ৮০০টি শাখা বন্ধ থাকবে। পরিষেবা মিলবে না ২১ হাজার এটিএমেও। আর্থিক দায় ঝেড়ে ফেলতে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক বেচে দিতে চায় কেন্দ্র। তথ্য দিয়ে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ ব্যাঙ্ক সংগঠনগুলির।
দফায় দফায় আলোচনার পরও বেতন বৃদ্ধি নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। তাই দু-দিনের ব্যাঙ্ক ধর্মঘট। বেতন নিয়ে ব্যাঙ্ক মালিক ও কর্মীদের টানাপোড়েন অবশ্য বেশ কিছুদিন ধরেই চলছে। ২০১৭ সালের নভেম্বরে বেতন বৃদ্ধির কথা ছিল রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককর্মীদের। এপ্রিলে ২ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির প্রস্তাব ব্যাঙ্ক মালিক সংগঠনের। অন্তত ৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি কর্মী সংগঠনগুলোর। তিনবার বৈঠকেও সমাধানসূত্র মেলেনি।
যদিও শুধু বেতনবৃদ্ধি নয়, ব্যাঙ্কের ভবিষ্যত সুরক্ষার জন্যও এই ধর্মঘট বলে দাবি কর্মী সংগঠনগুলোর। কর্মী সংগঠনগুলির দাবি, দাবিমতো বেতন বাড়ানোর প্রস্তাব নাকচ করার জন্য ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ যে লোকসানের কথা বলছে, তার দায় কর্মচারীদের নয়। বিভিন্ন কর্পোরেট ঋণ খেলাপিদের অনাদায়ী ঋণ, নোট বাতিলের মতো একাধিক সিদ্ধান্তের জন্যই ব্যাঙ্কগুলির লোকসানের বহর বেড়েছে বলে অভিযোগ।রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে ক্ষতিপূরণ ও নগদ যোগান দেওয়া, অনাদায়ী সম্পদের পরিমাণ কমানো, চাকরির নিরাপত্তা ও কাজের পরিবেশের উন্নতি। নোট বাতিলের সময় মৃত ও ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, এটিএম সহ ব্যাঙ্কের সব কাজে স্থায়ী নিয়োগ, ওভারটাইম ও ভাতা নিয়ম পরিবর্তন
গত তিন বছরে অধিকাংশ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের অনাদায়ী সম্পদ গড়ে বেড়েছে ৩০ শতাংশ। প্রতিশ্রুতি মতো মূলধন যোগান দেয়নি কেন্দ্র। বরং কৌশলে বেশ কিছু ব্যাঙ্ককে মিশিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা চলছে বলে অভিযোগ ব্যাঙ্ককর্মীদের। ধর্মঘটে কী সেই পরিস্থিতি কিছুটা হলেও পালটাবে?মাসের শেষে টানা ৪৮ ঘণ্টার ব্যাঙ্ক ধর্মঘটে সাধারণ মানুষের চূড়ান্ত দুর্ভোগের আশঙ্কা।