মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

উন্নয়নের জোয়ারে ক্যানিংয়ের ইটখোলা গ্রামপঞ্চায়েত

News Sundarban.com :
এপ্রিল ২৫, ২০১৮
news-image

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর হাত ধরে উন্নয়নের জোয়ারে বয়ে চলেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার ক্যানিং পশ্চিমের ইটখোলা গ্রামপঞ্চায়েত।দীর্ঘ ৩৪ বছর বামফ্রন্ট ক্ষমতায় থাকা স্বত্বেও কোন উন্নয়নের ছিঁটেফোঁটা পড়েনি।এলাকায় বয়ে যাওয়া মাতাল নদীর গ্রাসে একাধিকবার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল ইটখোলা গ্রামপঞ্চায়েতের বিভিন্ন গ্রাম। অসহায় মানুষজন নিজেদের করণ দুর্দশার কথা মাথায় রেখে ২০১৩ পঞ্চায়েত নির্বাচনে পরিবর্তনের হাত ধরে ক্ষমতায় এনেছিল তৃণমুল সরকার।
তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর প্রধান নির্বাচিত হন লড়াকুনেতা খতিব সরদার। তার হাত ধরে ইটখোল গ্রামপঞ্চায়েতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে বলে এলাকার সাধারণ মানুষজনের দাবী। এ বিষয়ে একান্ত এক সাক্ষাৎ কারে প্রধান খতিব সরদার বলেন “জনসাধারনের জন্য আমার পঞ্চায়েত এলাকায় একাধিক উন্নয়ন ঘটেছে।তিনি আরো বলেন এলাকার মানুষকে সাথে নিয়ে পাঁচ বছরে প্রত্যন্ত এলাকায় ১৫টি ঢালাই রাস্তা হয়েছে। বর্তমানে ১০ টি রাস্তার কাজ চলছে।সেইসাথে মাতলা ও বেলে ডোনার নদীর বাঁধ মজবুতভাবে তৈরী করা হয়েছে। ইটের রাস্তা হয়েছে ৭০টি। ইন্দিরা অাবাস১০০০,গীতাঞ্জলী ৩২৫ টি,শৌচালয় ৬৭২০টি।,অধিকার প্রকল্পের ঘর ৪০০টি,জলধরো প্রকল্পে খাল খনন ৬টি ও এনআরজিএস প্রকল্পে১০০ টি পুকুর খনন,পানীয় জলের ঘাটতি মেটাতে পিএইচই র কাজ চলছে এবং অকেজো হয়ে যাওয়া ৩০০ টি নলকূপ সারাই ও ১৮০টি নুতন নলকূপ তৈরী করে পানীয় জলের অকাল থেকে মুক্তকরা। অসহায় দরিদ্রদের কে নিজভূমি নিজগৃহ প্রকল্পে ২৮৪ জনকে স্বাভাবিক ভাবে রের্কড সহ পাট্টা প্রদান। প্রধানমন্ত্রী সড়ক যোজনায় দুটি রাস্তা সহ সুন্দরবন উন্নয়ণ পর্ষদের সহযোগিতায় ৪০কিমি রাস্তার কাজ হয়েছে। প্রধামন্ত্রী আবাস বাংলা যোজনায় ১৬০০ গৃহ নির্মাণ। পাশাপাশি শিক্ষার উন্নয়নের জন্যর৪টি আপার প্রাইমারী,আইসিডিএস ২১টি,এসএসকে র ২০ টি গৃহ নির্মাণ হয়েছে। এছাড়াও হাইস্কুল থেকে একটি মাত্র বিদ্যালয় উচ্চমাধ্যমিকে উন্নিত হয়েছে বলে জানালেন”।


নদীবাঁধ রক্ষার এবং পঞ্চায়েত এলাকাকে সবুজায়ন করতে ৩৭ টি রাস্তার পাশে প্রচুর বৃক্ষরোপণ হয়েছে। এনআরজিএস প্রকল্পে গৃহসম্মৃদ্ধি জন্য ৩০০০ পরিবারের হাতে নারকেল ও আম গাছের চারা প্রদান করা হয়েছে বলে জানা গেছে। খাদ্য সাথীর আওতায় ৩২০০ জন ও আয়লায় ক্ষতিগ্রস্থ ৪০০০ পরিবার সরকারী নথিভুক্ত রয়েছে। দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছরে সমব্যথী প্রকল্পে সহায়তা পেয়েছেন ৩০০ পরিবার।
এমনই বিশাল উন্নয়নের কর্মযোগের জন্য আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে ইটখোলা গ্রামপঞ্চায়েতর ২১ টি আসনের মধ্যে ১৩ টি  এমনকি সমিতির ৩ টি আসনে ও জয় এসে গেছে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় এমনটাই জানালেন প্রধান খতিব বাবু।
তিনি জানান আগামী দিনে ইটখোলা গ্রামপঞ্চায়েত কে আরো উন্নততর শিখরে নিয়ে যাওয়ার জন্য বদ্ধ পরিকর।