শনিবার, ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নামখানা ব্লকে অনুষ্ঠিত হচ্ছে কাঁকড়া বুড়ির মেলা

News Sundarban.com :
এপ্রিল ৬, ২০২৪
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, নামখানা: প্রত্যন্ত সুন্দরবনের নামখানা ব্লকে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ঐতিহ্যশালী কাঁকড়া বুড়ির মেলা। একসময় নামখানা এলাকার শিবনগর আবাদে গ্রামের পুজো হিসেবে এই মন্দিরে শীতলা বিশালক্ষী মায়ের পূজা অর্চনা হত। কিন্তু কালের বিবর্তনে আজ শুধু শিবনগর আবাদ নয়, নামখানা থেকে ছাড়িয়ে এই পুজো দেখতে ভক্তরা ছুটে আসেন দূর দূরান্ত থেকে। এই বছর ৬৬ বছরে পদার্পণ করল। সাত দিন ধরে এই মেলা চলে। প্রতিদিন হাজারো হাজারো মানুষের ঢল নামে এই মেলায়। এর এক অলৌকিক এটা ঘটনা রয়েছে, যে সময় মায়ের পূজা অর্চনা শুরু হবে। অর্থাৎ সুন্দরিকা-দোয়ানিয়া নদিতে যখন ঘট তুলতে যাবে তখন আকাশে উড়বে শঙ্খচিল এবং নদী থেকে উঠে আসবে কাঁকড়া । এটাই হচ্ছে এই শীতলা বিশালক্ষী মায়ের প্রধান আকর্ষণ। যা দেখার জন্য নদীর দুই পাড়ে হাজারো হাজারো মানুষের সমাগম ঘটে। এই কাঠফাটা রৌদ্রে আট থেকে আশি দাঁড়িয়ে থাকে কেবলমাত্র এই ঘট তোলা দেখার জন্য।

এই বছর পূজো কমিটির সম্পাদক বিদ্যুৎ কুমার দিন্দা বলেন, এই কাঁকড়া মায়ের পুজো নিয়ম রীতি-নীতি মেনে পূজা অর্চনা হয়। শুধু এই রাজ্যে নয়, অন্য রাজ্যের মানুষও এই মায়ের কাছে আসে পূজো দেওয়ার জন্য। প্রতিদিন হাজারো হাজারো মানুষের ঢল নামে এই মন্দিরে। মাছ ও কাঁকড়া তরকারি থেকে শুরু করে ক্ষীরভোগ থাকে মায়ের প্রসাদ।

 

এই মেলাটি সাত দিনের হলেও দোকানপাট বসে থাকে প্রায় এক মাসের উপর । মেলায় বসে হরেক রকমের দোকানপাট। এই মেলাতে সংস্কৃতিক মঞ্চে যাত্রাপালা থেকে শুরু করে শীতলা গান এবং গাজন গান সহ বিভিন্ন পালাগানের আয়োজন থাকে।

দিবাকর চৌধুরী যিনি কলকাতা থেকে সুদূর এই কাঁকড়া বুড়ি মন্দিরের পূজো দেখার জন্য এসেছেন। তিনি বলেন, আমার দীর্ঘদিনের ইচ্ছা যে এই মায়ের পুজোর সময় একবার সাক্ষাতে মাকে দর্শন করব। সেই সুযোগ এই বছর হয়েছে।