বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নাতি সায়নের স্মৃতির উদ্দেশ্যে ইসলামিয়া হাসপাতালকে ৭ লাখ টাকা দান দাদু আলাউদ্দিনের

News Sundarban.com :
এপ্রিল ৩, ২০২৪
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : সোমবার দুপুরে কলকাতার চিত্তরঞ্জন এভিনিউতে ইসলামিয়া হাসপাতালের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে একমাত্র নাতি সায়ন আহমেদের স্মৃতিতে ইসলামিয়া হাসপাতালে রোগীদের পরিষেবা দেওয়ার জন্য ৭ লাখ টাকার চেক প্রদান করলেন দাদু আলাউদ্দিন আহমেদ ও বাবা তাহির আহমেদ। ইসলামিয়া হাসপাতালের রোগীদের পরিষেবা দেওয়ার জন্য এই অর্থ তুলে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। উপস্থিত ছিলেন ইসলামিয়া হাসপাতালের ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমদ হাসান ইমরান, সাধারণ সম্পাদক আমির উদ্দিন ববি, ইসলামিয়া হাসপাতালের সুপার ডা: আনোয়ার জামাল, ফিন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান পারভেজ রাজা, সাংবাদিক সামিম হোসেন প্রমুখ।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতার ইকবালপুর থানার দেবী চৌধুরী রোডের বাসিন্দা কলকাতার প্রতিষ্ঠিত এক ব্যবসায়ী বছর ৮০র আলাউদ্দিন আহমেদ। স্থানীয় লোকেদের কাছে তিনি “আলম সাহেব” নামে পরিচিত। তার একমাত্র ছেলে তাহির আহমেদ ওরফে সোহেল। তাহির আহমেদের ছেলে অর্থাৎ কি না আলাউদ্দিন আহমেদ ওরফে (আলম দার) একমাত্র নাতি বছর সাতেকের সায়ন আহমেদ তার মা সাফরিন আহমেদের সঙ্গে ডিসেম্বর মাসের শেষে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার জয়নগর থানার জয়নগর গঞ্জের বাজারে নানা হাসেম খাঁর বাড়িতে বেড়াতে আসে। ১০ ই জানুয়ারি বুধবার হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে সায়ন। আর তারপর তেমন কোন চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে সন্ধ্যায় মারা যায় সায়ন আহমেদ। একমাত্র ছোট্ট নাতির মৃত্যুর খবরে পুরো আহমেদ পরিবারই মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। হঠাৎ তার সুখের সংসারে নেমে আসে শোকের পাহাড়। একমাত্র ছেলে সায়নকে হারিয়ে যেন বোবা হয়ে যায় সায়নের আব্বা তাহির আহমেদ। সায়নের মৃত্যুর খবর পেয়ে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে ইকবালপুর থানার দেবী চৌধুরী রোডে দাদু আলাউদ্দিন আহমেদের বাড়িতে আসেন রাজ্যের পুর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী তথা কলকাতা কর্পোরেশনের মেয়র ফিরহাদ হাকিম। উল্লেখ্য আলাউদ্দিন আহমেদ মন্ত্রী ও মেয়র ফিরহাদ হাকিমের নিকট আত্মীয়। সেই সময় ফিরহাদ হাকিমের কাছে নাতি সায়ন আহমেদের নামে জমানো টাকা দান করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন দাদু। সেই সময় মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম দাদু আলাউদ্দিনকে ইসলামিয়া হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ মেশিন কেনার জন্য টাকা দান করার পরামর্শ দেন। মন্ত্রীর সেই কথায় রাজি হয়ে যান দাদু আলাউদ্দিন। সেই মতো গতকাল দুপুরে আলাউদ্দিন আহমেদ ও তার শোকার্ত পুত্র তাহির আহমেদ এসেছিলেন চিত্তরঞ্জন এভিনিউতে ইসলামিয়া হাসপাতালে। সেখানে নাতি সায়ন আহমেদের স্মৃতিতে ইসলামিয়া হাসপাতালে রোগীদের পরিষেবা দেওয়ার জন্য কর্মকর্তাদের হাতে ৭ লাখ টাকার চেক তুলে দেন দাদু আলাউদ্দিন আহমেদ ও আব্বা তাহির আহমেদ।

চেক গ্রহণ করে ইসলামিয়া হাসপাতালের ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ হাসান ইমরান ও সাধারণ সম্পাদক আমির উদ্দিন ববি বলেন, ইসলামিয়া হাসপাতালের প্রেসিডেন্ট তথা রাজ্যের পুর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী এবং কলকাতা কর্পোরেশনের মেয়র ফিরহাদ হাকিমের পরামর্শ মত এই অর্থ দিয়ে হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের জন্য মেশিন কেনা হবে। ইসলামিয়া হাসপাতাল মানুষের দানেই গড়ে উঠেছে। এখন থেকে হিন্দু-মুসলিম সকলেই উন্নতমানের স্বাস্থ্য পরিষেবা প্রদান করা হচ্ছে। আহমেদ পরিবারের দানের এই নজির অন্যদেরকেও অনুপ্রাণিত করবে।

আরও দেখুন