বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

হাসপাতালের নিকাশিনালা,পানীয়জল এবং শৌচালয় ব্যবস্থার সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ বিধায়কের 

News Sundarban.com :
জানুয়ারি ১৭, ২০২৪
news-image

ক্যানিং – দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবন এলাকার বৃহত্তম ক্যানিং মহকুমা হাসপাতাল।প্রতিদিনই জেলার ক্যানিং,বাসন্তী,গোসাবা,জীবনতলা,কুলতলি,বারুইপুর,জয়নগর সহ উত্তর ২৪ পরগনা জেলার সন্দেশখালি,মিনাখাঁ,সরবেড়িয়া,মালঞ্চ সহ বিভিন্ন প্রান্তের হাজার হাজার রোগী আসে চিকিৎসার জন্য। বিগতদিনের তুলনায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালের বহর বেড়েছে। বেড়েছে চিকিৎসক এবং পরিষেবা। পাশাপাশি শিশু ও মায়েদের জন্য আলাদা ভাবে পাঁচতলা বিশিষ্ট ২৫১ টি বেডের তৈরী হয়েছে মাদার এন্ড চাইল্ড হাব ‘মাতৃমা’। যেখানে মা ও শিশুদের চিকিৎসা চলছে।ইদানিং হাসপাতালের আশেপাশে নিকাশী নালা অপরিষ্কার রয়েছে।এছাড়াও হাসপাতালে পানীয় জল এবং শৌচালয়ের সংকট রয়েছে। এতে করে হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসা রোগী ও তাদের পরিবার পরিজনদের কে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়।বিশেষ রাতে সমস্যা হয়।এহেন পরিস্থিতি কথা ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশ রাম দাসের কানে পৌঁছায়।জনসাধারণের দুর্দশার কথা শুনেই রবিবার সকালে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালের বিভিন্ন সমস্যা খতিয়ে দেখেন বিধায়ক।পাশাপাশি তিনি রোগীর পরিবার পরিজন এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে সমস্যা নিয়ে আলাপ আলোচনা করেন।এদিন বিধায়ক পরেশ রাম দাসের সাথে উপস্থিত ছিলেন,ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালের সুপার সুরেশ সরদার,ক্যানিং ১ পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষ আদিত্য বৈদ্য,শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ প্রদ্যুৎ রায়,দিঘীরপাড় পঞ্চায়েত উপপ্রধান বিশ্ব দাস,তন্ময় দাস(দীপু) সহ অন্যান্যরা।

ক্যানিং মহকুমা হাসপাতাল পরিদর্শনের পর বিধায়ক পরেশ রাম দাস জানিয়েছেন, ‘ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসা রোগী ও তাঁদের পরিবার পরিজনের যাতে করে সমস্যায় না পড়েন সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। পাশাপাশি নিকাশিনালা,পানীয় জল এবং শৌচালয় নিয়ে যে সমস্যা রয়েছে তা দ্রুততার সাথে সমাধান করা হবে।এছাড়াও খুব শীঘ্রই মাতৃমা হাসপাতাল চত্বরে রোগী ও তাঁদের পরিবার পরিজনদের জন্য পানীয় জল ও শৌচালয়ের ব্যবস্থা করা হবে তারজন্য ১০৭১০০০(দশ লক্ষ একাত্তর হাজার) টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে পাশাপাশি ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে পরিশ্রুত পানীয় জলের ও ব্যবস্থা করা হবে।যার কাজ সোমবার থেকে শুরু হবে।”

বিধায়কের এমন পরিকল্পনার কথা জানতে পেরে খুশি রোগীর আত্মীয় পরিজনেরা।উত্তর ২৪ পরগনা’র মনিপুর পঞ্চায়েতের জয়গোপালপুর গ্রাম চিকিৎসা করাতে আসা এক রোগী পরিজন সমীর মন্ডল জানিয়েছেন, ‘ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে শৌচালয় এবং পানীয় জলের সমস্যায় জর্জরিত।ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশ রাম দাস ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসা রোগী ও তাঁদের পরিবারের কথা মাথায় রেখে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে শৌচালয় এবং পানীয় জলের সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ গ্রহণ করায় খুব ভালো লাগছে।বিধায়ক কে অশেষ ধন্যবাদ।’