মঙ্গলবার, ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আরপিএফ এর তৎপরতায় নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে প্রাণে বাঁচলেন মহিলা রেলযাত্রী

News Sundarban.com :
ডিসেম্বর ৩১, ২০২৩
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি,ক্যানিং – উত্তম কুমার রায়।তিনি আরপিএফ এর এএসআই।৩১ ডিসেম্বর অবসর গ্রহণ করবেন।অবসরের ঠিক ২৪ ঘন্টা আগেই নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে প্রাণে বাঁচালেন এক মহিলাকে।শনিবার বিকালে ঘটনাটি ঘটেছে শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার ক্যানিং ষ্টেশনে।স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার ক্যানিং ষ্টেশন। ষ্টেশনের ১ নম্বর প্লাটফর্মে ট্রেন দাঁড়িয়ে রয়েছে ট্রেন। ৩ টে বেজে ৪৫ মিনিটে শিয়ালদহের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।সঠিক সময়ে ট্রেন ছেড়ে দেয়। সেই মুহূর্তে ক্যানিং ষ্টেশনে কর্তব্যরত অবস্থায় দাঁড়িয়ে ছিলেন আরপিএফ এর এএসআই উত্তম কুমার রায় ও হেড কনষ্টেবল অরুণ কুমার খাঁ।ট্রেন শিয়ালদহের উদ্দেশ্যে রওনা দিতেই চলন্ত ট্রেনে জনৈক এক মহিলা দৌড়ে গিয়ে ট্রেনের কামরায় ওঠার চেষ্টা করেন।আচমকা পা পিছলে পড়ে যায় ওই মহিলা।সেই মুহূর্তে আরপিএফ এর দুই জোয়ান দৌড়ে আসেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কয়েক সেকেন্ডের তৎপরতায় ওই মহিলা কে সাক্ষাৎ মৃত্যুর হাত থেকে উদ্ধার করেন।ঘটনায় অল্পবিস্তর জখম হয় আরপিএফ এর দুই জোয়ান।তবে নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে মহিলাকে বাঁচাতে পেরে তাঁরা খুশি।

স্টেশনের প্রত্যক্ষদর্শী সিকান্দর সাহানীর কথায়,ট্রেন ছেড়ে গিয়েছিল।ওই মহিলা চলন্ত ট্রেনে উঠার চেষ্টা করতেই পা পিছলে পড়ে যায়। কর্তব্যরত দুই আরপিএফ জোয়ান দৌড়ে গিয়ে মহিলাকে কোন রকমে উদ্ধার করে প্রাণে বাঁচায়। কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধান ছিল।আরপিএফ তৎপর না হলে মহিলা ট্রেনের নীচে পড়ে মারা যেতেন।আরপিএফ এর সৌজন্যে বরাত জোরে প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন মহিলা।’

স্টেশনের অপর এক মহিলা প্রত্যক্ষদর্শী যুথিকা ভুঁইয়া জানিয়েছেন, ক্যানিং স্টেশনের দুই আরপিএফ জোয়ান তৎপরতার সাথে যেভাবে মহিলাকে মৃত্যুর মুখ থেকে বাঁচালেন তা অত্যন্ত প্রশংসনীয় ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।’