রবিবার, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নামখানা ব্লকে দরিদ্রদের বস্ত্র বিতরণ  

News Sundarban.com :
অক্টোবর ১৮, ২০২৩
news-image

ঝোটন রয়, নামখানা: বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজো। রাত পোহালেই শুভ পঞ্চমী। কাশ ফুলের দোলাচলে। চারিদিকে আনন্দ মুখরিত। এই অবস্থায় দুর্গাপুজোর আনন্দে মেতে উঠতে চায় অসহায় দরিদ্র শিশু ও দুঃস্থ মানুষজন। সকলে যখন নতুন পোশাক পরে উৎসবমূখর দিনগুলিতে আনন্দে আত্মহারা, ঠিক তখনই অসহায় দরিদ্র শিশু ও দুঃস্থরা চাতকের মতো তাকিয়ে থাকেন। নুন আনতে যাদের পান্তা ফুরায় তাদের কাছে উৎসব, নতুন বস্ত্র যেন এক কল্পনাতীত স্বপ্ন।

যাতে করে উৎসবের দিনগুলোতে অসহায় শিশু ও দুঃস্থ মানুষজন নতুন পোশাক পরে আনন্দে মেতে উঠতে পারে তারজন্য অগ্রণী ভূমিকা পালন করলো তৃণমূল কংগ্রেসের দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলা পরিষদের সদস্য অখিলেশ বারুই। প্রত্যন্ত সুন্দরবনের নামখানা ব্লকের ফ্রেজারগঞ্জে দুস্থ দরিদ্র মানুষদের হাতে পুজোর উপহার তুলে দিলেন তিনি।

বুধবার বিকেলে ৩৫০ জন অসহায় শিশু থেকে শুরু করে দুঃস্থ মানুষজনের হাতে পুজোর উপহার মায়েদের নতুন বস্ত্র, ধুতি, বেডশীট, মশারি, লুঙ্গি সহ একাধিক দ্রব্য তুলে দেওয়া হয়। অখিলেশ বাবু ছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ নীলকন্ঠ বর্মন, ফেজারগঞ্জ পঞ্চায়েতের প্রাক্তন প্রধান গৌতম প্রামানিক, বিশিষ্ট সমাজসেবী প্রসেনজিৎ জানা।

এই প্রসঙ্গে অখিলেশ বাবু বলেন, অসহায় মানুষগুলো আনন্দ উৎসব থেকে বঞ্চিত হবে, সেটা মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। তাই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী বঙ্কিমচন্দ্র হাজরার ব্যবস্থাপনায় দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার সুন্দরবনে অনেক ক্ষয়ক্ষতির পাশে থাকা মানুষগুলো আজ বড় অসহায়। এখন যাদের মাথার ওপর মজবুতি ছাদ নাই। তাদের এই দুরবস্থার পাশেই শারদীয়ার পূজোর প্রাক মুহূর্তে পবিত্র সমস্ত ধর্মের পবিত্র অনুষ্ঠানে তাদেরকে বস্ত্র বিতরণ করা হল। এটা ত্রাণ নয়, এটা হচ্ছে উপহার। সবাইয়ের পুজো ভালো কাটুক এটাই আমি চাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মা বলেন, এরকম এক পরিস্থিতির ওপর দাঁড়িয়ে পুজোতে আমার মেয়েকে কাপড় কিনে দেওয়ার মতো সামর্থ্য ছিল না। আজ এই কাপড় পেয়ে আমি খুশি। বাড়িতে নিয়ে গিয়ে এই কাপড় আজ আমার মেয়ের হাতে তুলে দেব।