বৃহস্পতিবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কানে কালাচের কামড়,সাপ ছুঁড়ে ফেলে গুণীন ডাকলেন বৃদ্ধা!চিকিৎসকের চেষ্টায় প্রাণ ফিরে পেলেন

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২৩
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি,ক্যানিং – কালাচ সাপের কামড় খেয়ে,রাতের অন্ধকারে সাপ ধরে ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে গুণীন ডাকলেন এক বছর পঞ্চান্ন বয়সের বৃদ্ধা।পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ায় প্রাণে বাঁচলেন বৃদ্ধা।মঙ্গলবার রাতে এমন ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ঝড়খালি কোষ্টাল থানার অন্তর্গত নফরগঞ্জ পঞ্চায়েতের ৬ নম্বর বাগেরঘেরী গ্রামে।গীতা মন্ডল নামে ওই বৃদ্ধা বর্তমানে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে ওই বৃদ্ধা বাড়িতে একা থাকেন। খাওয়া-দাওয়া সেরে রাতে ঘুমিয়েছিলেন। রাত প্রায় সাড়ে নটা নাগাদ তাঁর ডান কানে একটি কালাচ সাপ কামড় দেয়।মুহূর্তে সাপটি ধরে দূরে ছুঁড়ে ফেলেন।চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা দৌড়ে আসেন।তড়িঘড়ি পাড়ার এক ওঝাগুনণীন কে ডাকা হয়।চলতে থাকে ঝাড়ফুঁক। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে কয়েকজন প্রতিবেশী গুণীনের কব্জা থেকে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য বাসন্তী ব্লক হাসপাতালে নিয়ে যায়।সেখানে ১০ টি সাপে কামড়ানো প্রতিষেধক এভিএস দেওয়া হয়।পরক্ষণে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন চিকিৎসকরা।রাত প্রায় ১২ টা ৫০ মিনিটে ওই বৃদ্ধাকে কে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায় পরিবারের লোকজন।ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালের সর্প বিশেষঞ্জ চিকিৎসক ডাঃ সমরেন্দ্র নাথ রায় ও ডাঃ প্রজ্জ্বল সরকারের তত্বাবধানে ওই বৃদ্ধাকে ২০ টি এভিএস দেওয়া হয়।বর্তমানে বিপদ মুক্ত অবস্থায় ক্যানিং মহকুমা হাপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বৃদ্ধা গীতা মন্ডল।

বৃদ্ধা জানিয়েছেন, বাড়িতে ঘুমাচ্ছিলাম। আচমকা ডান কানে একটি কালাচ সাপ কামড় দেয়। বুঝতে পেরে সাপটাকে ছুঁড়ে ফেলে দিই।প্রতিবেশী এক ওঝাগুণীন কে ডেকে ঝাড়ফুঁক করি।তারপর আর কিছু মনে নেই।’

ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালের সর্পবিশেষঞ্জ চিকিৎসক ডাঃ সমরেন্দ্র নাথ রায় জানিয়েছেন, ’রাতে গীতা মন্ডল নামে এক বৃদ্ধাকে কানে কালাচ সাপ কামড় দিয়েছিল। ওঝাগুণীনের কাছে নিয়ে গিয়ে ঝাড়ফুঁক করা হয়েছিল।বেশকিছু সময় নষ্ট হয়।বৃদ্ধার প্রাণহানি ঘটতে পারতো। বরাতজোরে প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন।’