বৃহস্পতিবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দীর্ঘদিন সংস্কার হয়নি, খানাখন্দে ভরপুর, বিপদের ঝুঁকি নিয়েই হেঁটেই যাতায়াত করতে হয় এলাকার বাসিন্দাদের

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২৩
news-image

বিশ্লেষন মজুমদার, ক্যানিং – নাম পথের দাবী। সেই পথের দাবীতেই চলাচল করার রাস্তার বেহাল দশা।দীর্ঘ দিনের সমস্যা।রাস্তা না নদী?দেখে বোঝার উপায় নেই।দু-একটি টোটো-অটো চলাচল করলেও জীবনের ঝুঁকি থেকে যায়।এছাড়াও রাস্তা খারাপের জন্য অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই যাতায়াত করতে হয়।বর্তমানে রাস্তার এমন বেহাল দশার জন্য এলাকার মানুষজন পায়ে হেঁটেই চলাচল করেন।দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলার ক্যানিং পশ্চিম বিধানসভার বাঁশড়া গ্রাম পঞ্চায়েত।পঞ্চায়েত এলাকায় প্রায় দেড় কিমি রাস্তা রয়েছে ‘পথের দাবী থেকে বেতবেড়িয়া(ঘোলা)স্টেশন পর্যন্ত।আবার অপর দিকে রয়েছে ঘুটিয়ারীশরীফ স্টেশন।এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিনই পথের দাবী,বিদ্যাধরী পল্লি,শক্তি পল্লি,প্রতাপগড়,সংগ্রামী নগর,হরেন্দ্র পল্লি এলাকার সাধারণ মানুষজন সহ ৪ টি অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র,এলাকার ৮ প্রাথমিক বিদ্যালয়,দুটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র সহ সংগ্রাম নগর হাইস্কুল ও হরিহর মহাবিদ্যালয়ের হাজার হাজার ছাত্রছাত্রীরা যাতায়াত করে।এলাকার মানুষের দাবী,রাস্তাটি প্রায় ৭ বছরের অধিক সময় জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সংস্কার হয়নি।প্রশাসনের কোন হেলদোল নেই।গর্ভবতী মায়েদের কে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যেতে নাভিঃশ্বাস ওঠে।স্কুলের কচিকাঁচারা স্কুলে যেতে গিয়ে অনেক সময় রাস্তার খানাখন্দে পড়ে গিয়ে আহত হচ্ছে।এছাড়াও দিনের বেলায় যদিও বা কয়েকটি টোটো-অটো চলাচল করে,সন্ধ্যা হলেই আর দেখা মেলে না। অগত্যা এলাকার মানুষজন পায়ে হেঁটেই যাতায়াত করেন।

এলাকাবাসীদের দাবী, ‘বেহাল রাস্তা সংস্কারের জন্য বিভিন্ন ভাবে দরবার করেও সুরাহা মেলেনি। অথচ বর্তমানে বিভিন্ন ছোটবড় রাস্তার পাশে শোভা পাচ্ছে ‘‘পথশ্রী’ বোর্ড।সেখানে পথের দাবী থেকে বেতবেড়িয়া স্টেশন পর্যন্ত প্রায় দেড় কিমি রাস্তার বেহাল পরিস্থিতি প্রশাসনের নজরে নেই, ভাবতে অবাক লাগে!কেউ যদি জেগে ঘুমায়,তাকে ঘুম ভাঙানো খুব মুশকিল।’

রাস্তার এমন বেহাল দশা প্রসঙ্গে বাঁশড়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সাগরিকা হালদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছে, ‘রাস্তাটির বেহাল দশা সম্পর্কে আমরা ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশ রাম দাস কে জানিয়েছি।আশা করি খুব শীঘ্রই রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু হবে।’

অন্যদিকে এলাকার সাধারণ মানুষ থেকে স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীরা অধীর আগ্রহে চাতকের মতো তাকিয়ে কবে এই রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু হবে?কবে যাতায়াত সমস্যার সুরাহা হবে?