মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিশ্বের বৃহত্তম মাটির গণেশ প্রতিমা পূজিত হচ্ছে সুন্দরবনের ক্যানিংয়ে

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ২০, ২০২৩
news-image

সুভাষ চন্দ্র দাশ, ক্যানিং :  সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার নামে আন্তর্জাতিকস্তরে খ্যাতি অর্জন করেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ক্যানিং শহর।গণেশ চতুর্থী উপলক্ষ্যে সেই ক্যানিং শহরেই এবার পূজিত হচ্ছে দীর্ঘ ৩১ ফুট মাটির গণেশ প্রতিমা মাটির।যা সমগ্র বিশ্বে কোথাও এমন মাটির গণেশ প্রতিমা পূজিত হয়নি।ইতিমধ্যে হাজার হাজার দর্শনার্থী ভীড় জমিয়েছেন দীর্ঘাকায় গণেশ মূর্তি দর্শনের জন্য।উল্লেখ্য তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটোরে কুলিয়াপুলামে অবস্থিত আরুলমিগু মুন্ডি বিনয়নগর মন্দির নামে পরিচিত।সেখানে ১৯ ফুট লম্বা, ১১ ফুট চওড়ার ১৯০ টন ওজনের পাথরের গণেশ মূর্তি রয়েছে।তামিল রাজ্যের এই গণেশ মূর্তিটি এশিয়ার বৃহত্তম। অন্যদিকে ২০১২ সাথে থাইল্যান্ড একটি ব্রোঞ্জের গণেশ মূর্তি প্রতিস্থাপিত হয়েছে।থাইল্যান্ডের খুলং খুয়ানে ৩৯ মিটার(১২৭.৯৫১২ ফুট) গণেশের মূর্তি রয়েছে এবং ‘গণেশ থাইল্যান্ড’ নামে সমগ্র বিশ্বে জনপ্রিয়।

তবে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে ধাতুর গণেশ বিভিন্ন বিশালাকার থাকলেও মঙ্গলবার গণেশ চতুর্থী উপলক্ষে সুন্দরবনের এই ক্যানিং শহরের ১ নম্বর দিঘীরপাড় পূর্বপাড়ার ‘রবিকিরণ’ ক্লাবের উদ্যোগে দীর্ঘ ৩১ ফুট মাটির গণেশ মূর্তির পূজো শুরু হয়েছে।যা সমগ্র বিশ্বের ইতিহাসে সর্ব বৃহৎ মাটির গণেশ প্রতিমা।

জানা গিয়েছে বিগত ১৩ বছর আগেই ক্যানিংয়ের রবিকিরণ গণেশ উৎসবে মেতে উঠেছিল।সেই ধারাবাহিকতার সাথে সামঞ্জস্য রেখে ২০২২ এ ২১ ফুট উচ্চতার মাটির গণেশ মূর্তির পূজো করেছিলেন উদ্যোক্তারা।চলতি বছর ৩১ ফুট উচ্চতার মাটির গণেশ মূর্তি পূজিত হচ্ছে।

গণেশ উৎসব কমিটির সহ-সভাপতি গণেশ দাস জানিয়েছেন,‘সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার নামে ক্যানিং যেভাবে খ্যাতি অর্জন করেছে।আমাদের ৩১ ফুট মাটির গণেশ মূর্তি তেমন খ্যাতি অর্জন করবে বলে আমরা আশাবাদী।কারণ আজ অবধি পৃথিবীর কোন প্রান্তে ৩১ ফুট মাটির গণেশ মূর্তি পূজিত হয়নি।’

রবিকিরণ এর সহ সহ-সম্পাদক প্রসূন বেরা জানিয়েছে, ‘১৩ তম বর্ষের গণেশ উৎসব ১০ দিন ধরেই চলবে।ইতিমধ্যে ৩১ ফুট মাটির গণেশ মূর্তি দর্শন করার জন্য হাজার হাজার মানুষ ভীড় জমাচ্ছেন। এছাড়াও রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান,স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির,সঙ্গীত ও নৃত্য প্রতিযোগীতা,বাউল গান।