বৃহস্পতিবার, ৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কাকদ্বীপে সাপের কামড়ে মৃত শিশুকে কলার ভেলায় ভাসিয়ে দেওয়া হলো নদীতে

News Sundarban.com :
আগস্ট ২৩, ২০২৩
news-image

শিল্পা মাইতি, কাকদ্বীপ: এ যেন মনসামঙ্গল কাব্যের দৃশ্য। সাপের কামড়ে মৃত লক্ষিন্দর কলার ভেলাতে ভাসছে নদীতে। তবে লক্ষিন্দর ফিরে এলেও ফিরলো না সাপের কামড়ে মৃত কাকদ্বীপের শিশু। আবারো মধ্যযুগীয় কুসংস্কারের ছায়া কাকদ্বীপে। সাপের কামড়ের মৃত শিশুকে ভেলায় করে ভাসানো হলো নদীতে।সাপের কামড়ে মৃত শিশুকে ভেলায় করে নদীতে ভাসালো পরিবার এবং গ্রামবাসীরা। তাদের বিশ্বাস ছিল পুনরায় বেঁচে ফিরবে তাদের শিশু সন্তান। কিন্তু তা আর হলো না।

অবশেষে পুলিশ নদী থেকে ওই শিশুর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠালো হাসপাতাল মর্গে।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার কাকদ্বীপের হারউড পয়েন্ট কোস্টাল থানার অন্তর্গত প্রসাদপুর এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় মঙ্গলবার হারুড পয়েন্ট কোস্টাল থানার অন্তর্গত প্রসাদপুর এলাকায় সাপের কামড়ে মৃত্যু হয় আড়াই বছরের এক শিশুর। মৃত শিশু তুষান দাস। পরিবার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে নিজের বাড়িতে ছোট্ট তুসানকে সাপে কামড়ায়। তারপর পরিবারের লোকজন তুষানকে কাকদ্বীপ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই মৃত্যু হয় বছর আড়াই এর শিশু তুসাণের। হাসপাতাল থেকে তুষানের দেহ নিয়ে আসার পরে কলা গাছ দিয়ে ভেলা বানিয়ে স্থানীয় নদীতে তুষানের দেহ ভাসিয়ে দেন পরিবারের লোকজন। নদীতে ভেলাটি ভাসতে ভাসতে বুধবার দুপুরে প্রসাদপুর এলাকায় নদী বাঁধের পাইলিনের গায়ে গিয়ে আটকে যায়। তখনো ভেলাটিতে রয়েছে মৃত তুসান। ঘটনার খবর চারিদিকে চাউর হতেই এলাকার লোকজন নদীর ঘাটে এসে পৌঁছায় ভেলা দেখতে।

ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় হারুড পয়েন্ট কোস্টাল থানার পুলিশও। পুলিশ পৌঁছে নদীতে থাকা ভেলা থেকে আড়াই বছরের শিশু তুষাণ দাসের মৃতদেহ উদ্ধার করে কাকদ্বীপ হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যায়।