বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সুন্দরবন এলাকার মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদানে অম্বুজা নেওটিয়ার

News Sundarban.com :
আগস্ট ২১, ২০২৩
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, নামখানা: নামখানা ব্লকের দক্ষিণ চন্দনপিড়ি বিবেকানন্দ ওয়েলফেয়ার সোসাইটিতে অম্বুজা নেওটিয়ার পক্ষে সুন্দরবন এলাকার মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান কর্মসূচি ও মেন্টরিং প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হল। শান্তনু দাস-এর সঙ্গীত পরিবেশনে মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভারম্ভ হয়। সুন্দরবনের প্রত্যন্ত জি-প্লট, মইপিঠ, কাকদ্বীপ, নামখানা, জয়নগর বিভিন্ন এলাকার ১৫ জন ছাত্রছাত্রীকে এদিন বৃত্তি প্রদান করা হয়। সেই সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গে উচ্চমাধ্যমিকে যুগ্মভাবে নবম পবিত্র মাইতি ও কুতুবউদ্দিন বাড্ডিকে সংগঠনের পক্ষ থেকে সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। এই সম্বর্ধনা সভায় বিবেকানন্দ ওয়েলফেয়ার সোসাইটির পক্ষে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক পার্থসারথি মন্ডল। পার্থ বাবু বললেন, সবাই যখন আনন্দ উপভোগ করে আমরা তখন সুষ্ঠুভাবে দায়িত্ব সামলাই। অম্বুজা নেওটিয়ার পক্ষে এজিএম সিএসআর রাজিব সিনহা এই বৃত্তির নিয়ম-কানুন এবং ছাত্র-ছাত্রীদের ক্যারিয়ার কাউন্সিলিং ও পরবর্তীতে তারা কিভাবে এগোবে এসব ব্যাপারে বিশদে আলোচনা করেন। অম্বুজা নেওটিয়া কিভাবে কাজ করে তা নিয়ে বিশদে বলেন এক্সিকিউটিভ সিএসআর অমিত শিকদার। তবে আজকের এই প্রোগ্রামের মূল আকর্ষণ ছিল ড. সুস্মিতা ঘোষ। উনি জাতীয় স্তরের একজন মোটিভেশনাল স্পিকার। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মা সারদার উপর উনিই একমাত্র ডক্টরেট। ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে তাঁর প্রাঞ্জল বক্তব্য দীর্ঘদিন মনে থাকবে। উনি স্বামীজীর লেখা এবং জীবন দর্শন আজকের দিনে কতটা প্রাসঙ্গিক এবং আগামী দিনে পথ চলার জন্য স্বামীজি ও তার জীবন কতটা মার্গ দর্শন করতে পারবে সেটা নিয়েও বিশদে বলেন। প্রায় এক ঘন্টা ১৫ মিনিট মন্ত্রমুগ্ধের মতো ছাত্র-ছাত্রীরা উনার বক্তব্য শুনতে থাকেন।

পরে তিনি সমস্ত ছাত্র ছাত্রীদের হাতে উপহার তুলে দেন সুস্মিতা ম্যাডাম। সবার শেষে রাজিব বাবু বলেন, আগামী ২০ই অক্টোবর ২০২৩ এরকম আরো একটি সভা কলকাতাতে হবে যেখানে সমস্ত ছাত্র ছাত্রীদের আবার উপস্থিত থাকতে হবে।

আজকের সভায় উপস্থিত থেকে সংগঠনের সম্পাদক তথা অধ্যাপক ড. শান্তনু বেরা বলেন, অম্বুজা নেওটিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক দক্ষিণ কলকাতা বিবেকানন্দ যুব কল্যাণ কেন্দ্রের মাননীয় প্রিয়ব্রত গুহবিশ্বাস এর মাধ্যমে হয়। সেক্ষেত্রে গত বছর দুজন বৃত্তি পেয়েছিল। এবছর সেটা বেড়ে ১৫ জন হয়েছে। তাছাড়া এই সংগঠনের মাধ্যমে প্রায় ৩০-৩৫ জন ছাত্রছাত্রী স্কলারশিপ ছাড়াও বই ও অন্যান্য সাহায্য পায় বলে ডক্টর বেরা জানান। তিনি আরো বলেন, বিবেকানন্দ ওয়েলফেয়ার সোসাইটি ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান কর্মসূচি ছাড়াও সুন্দরবনের মত এলাকায় মানুষের জীবন জীবিকা, বন সংরক্ষণ, ফ্লাড রিলিফ, কৃষি ও প্রাণিসম্পদ সংক্রান্ত ক্যাম্প, নারী স্বাস্থ্য সচেতনতা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কাজ করে থাকে। সেক্ষেত্রে সাধারণ মানুষ এবং বিভিন্ন ডোনার তাদের সাহায্য করে থাকেন।

আজকের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি অনুপ মাইতি, সহ-সভাপতি প্রবীর পাল, সহ-সম্পাদক বিদ্যুৎ তিয়ারি, কোষাধ্যক্ষ অভিজিৎ বর্মন, এমসি মেম্বার অতনু কুমার বেরা ও নবকুমার গায়েন, দেবপ্রসাদ মন্ডল, অনুপম গিরি, দীপক মাইতি প্রমূখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জি প্লট রামকৃষ্ণ মিশনের শংকর কুমার দাস মহাশয়। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন শিক্ষক শোভন মন্ডল। অনুষ্ঠান শেষে সবাই জাতীয় সঙ্গীত গায় এবং গ্রুপ ফটো তোলা হয়।