শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

এলাকায় ক্ষমতা জাহির করতে বোমাবাজীর অভিযোগ প্রাক্তন তৃণমূল প্রধানের বিরুদ্ধে, তদন্তে পুলিশ

News Sundarban.com :
আগস্ট ১৬, ২০২৩
news-image

সুভাষ চন্দ্র দাশ, বাসন্তী : এলাকার কর্তৃত্ব কায়েম করার জন্য ব্যাপক বোমাবাজী করার অভিযোগ উঠলো একদা তৃণমূলের প্রাক্তন প্রধান বর্তমানে নির্দল আশ্রিত দীপু সরদার ও তার অনুগামী গৌতম সরদার,পরিক্ষীত সরদার, গোরা সরদার, কাশিনাথ সরদার, শ্রীমন্ত সরদার,বাপী সরদার, নিতাই সরদার, উত্তম মন্ডল সহ দুষ্কৃতিদের বিরুদ্ধে।মঙ্গলবার গভীর রাতে ভয়াবহ বোমাবাজীতে গোটা গ্রাম কেঁপে ওঠে। এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।ঘটনার খবর পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে বাসন্তী থানার পুলিশ।এলায় চলছে পুলিশি ঢহল। বাসন্তী থানার অন্তর্গত উত্তর মোকামবেড়িয়া পঞ্চায়েতের হাড়ভাঙ্গী গ্রামের গোলামবারি মিঠাপুকুর পাড়া এলাকার ঘটনা।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রের খবর মঙ্গলবার দুপুরে পাড়াতে একটি ঝামেলা হয়। সেই ঝামেলা কে কেন্দ্র করে এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।দীপু সরদারের নেতৃত্বে নির্দল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা এক তৃণমূল কর্মী কে বেধড়ক মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। ঘটনায় গুরুতর জখম হয় হাসেম আলি মোল্লা নামে এক তৃণমূল কর্মী।ঘটনার বিষয়ে বাসন্তী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত ওই তৃণমূল কর্মী। ঘটনার খবর পেয়ে বাসন্তী থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। মঙ্গলবার রাতে আবারও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা।গ্রামবাসীদের অভিযোগ,তৃণমূল দলে থেকে ব্যাপক অত্যাচার চালাচ্ছিল দীপু।দল সেটা ভালো চোখে নেয়নি।যার ফলে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দল দীপু কে টিকিট দেয়নি।ক্ষমতা ধরে রাখতে দলের বিরুদ্ধে গিয়ে দীপু নির্দল প্রার্থী হিসাবে পঞ্চায়েত নির্বাচনে লড়াই করে হেরে যায়।সন্ত্রাস সৃষ্টি করে পুণরায় ক্ষমতায় ফিরতে চাইছে।

আরো অভিযোগ তৃণমূলের প্রাক্তন প্রধান তথা নির্দল আশ্রিত দীপু সরদারের নেতৃত্বে মঙ্গলবার গভীর রাতে এলাকায় বোমাবাজী হয়। ঘটনায় কুহেলি হালদার,প্রবীর সরদার,রামপ্রসাদ সরদারদের বাড়িঘর আক্রান্ত হয়।
এলাকার বর্তমান তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য বিদেশ ঘরামীর দাবী, ‘দীপু তার দলবল নিয়ে প্রতিনিয়ত এলাকায় সন্ত্রাস চালাচ্ছে,তৃণমূল কর্মীদের বেধড়ক মারধর করছে। পাশাপাশি বোমাবাজী করে লোকজনদের কে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। আমরা পুলিশ প্রশাসন কে জানিয়েছি দীপু ও তার দলবল কে গ্রেফতার করে শাস্তি দিক।’
এলাকার গৃহবধু কুহেলি হালদার জানিয়েছেন,আমরা তৃণমূল কংগ্রেস কে ভালোবাসি। সে কারণে তৃণমূলের প্রার্থী বিদেশ ঘরামী কে ভোট দিয়েছিলাম।দীপু সেটা মেনে নিতে পারেনি।এলাকায় বোমাবাজী করে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে।ওর উপযুক্ত শাস্তির দাবী জানিয়েছি পুলিশের কাছে।’

অন্যদিকে সমস্ত ঘটনার কথা অস্বীকার করেছেন তৃণমূলের প্রাক্তন প্রধান বর্তমান নির্দল আশ্রিত দীপু সরদার। তিনি বলেন, তৃণমূল কংগ্রেস করতাম। এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে দল টিকিট দেয়নি।দলের নির্দেশ অমান্য করে নির্দল প্রার্থী হয়েছিলাম। হেরেও গিয়েছি।যারা জিতেছে তারাই এলাকায় বোমাবাজী করে সন্ত্রাস চালাচ্ছে।আমার নামে মিথ্যা অপবাদ করছে।তিনি আরো বলেন,মঙ্গলবার রাতে তৃণমূলে দুষ্কৃতিরা এলাকায় বোমাবাজি করে দুরাউন্ড গুলি চালায় আমাকে মেরে ফেলার জন্য। কোন রকমে বরাত জোরে প্রাণে বেঁচে গিয়েছি।দুষ্কৃতিরা আমার ও আমার বৌদি কে বেধড়ক মারধর করে।’
অন্যদিকে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বাসন্তী থানার পুলিশ।এলাকায় রয়েছে চরম উত্তেজনা।