বুধবার, ১২ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বড় বালির ভাস্কর্য তৈরি করে ভারত গৌরব পেল নামখানার যুবক

News Sundarban.com :
আগস্ট ১২, ২০২৩
news-image

শিল্পা মাইতি, নামখানা: জীবনের প্রথম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সব থেকে বড় বালুর ভাস্কর্য তৈরি করে ভারত গৌরব সম্মান পেল নামখানার যুবক। ২৫ শে বৈশাখ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মদিনে উপলক্ষে তৈরি করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বালুর ভাস্কর্য। তাও আবার বেশ বড়। ভারতবর্ষের মধ্যে সবথেকে বড় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বালুর ভাস্কর্য করার জন্য ভারত গৌরব সম্মান পেল দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার নামখানা ব্লকের পাতি বুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা পলাশ দাশ।

পলাশ বাবু পেশায় একজন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর। পাশাপাশি তিনি আদিবাসী ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের ছবি আঁকা শেখানো সহ বিভিন্ন আর্টের কাজ শেখান। ভারত গৌরব সম্মান পাওয়ায় খুশি পলাশ বাবুর পরিবার থেকে প্রতিবেশীরা। প্রতিবেশীরা আশীর্বাদ করেছেন পলাশ বাবুকে যাতে আরো এগিয়ে যেতে পারে।

অন্যদিকে পলাশ জানান ইচ্ছে করেই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বড় বালুর ভাস্কর্য তৈরি করেছিলাম। সেটাই আমাকে ভারত গৌরব সম্মানে জায়গা করে দিয়েছে। বঙ্গোপসাগরের শেষ প্রান্তে পর্যটন কেন্দ্র বকখালি তে এই ভাস্কর্য তৈরি করে ছিলাম । এরপরে লক্ষ্য রয়েছে আগামী বছরের নেতাজি কে নিয়ে বড় কিছু করার চিন্তা রয়েছে ।কাজের অবসরে পাতি বুনিয়ার আদিবাসী গ্রাম থেকে কিছু দুস্থ ছেলেমেয়েদেরকে, সম্পূর্ণ বিনা পয়সায় ছবি আঁকা শেখাই। এবং মাঝে মধ্যে তাদেরকে বকখালির সমুদ্র সৈকতে নিয়ে গিয়ে বালুর ভাস্কর্য তৈরি করা শেখান পলাশ। ভবিষ্যতে আরও ভালো কিছু করার পরিকল্পনা শুরু করেছেন পলাশ।

উল্লেখ্য গত কয়েকমাস আগে এই বালুর ভাস্কর্য তৈরি করায় ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডস এর নাম তুলেছিলেন পলাশ দাশ। আবারো ভারত গৌরব সম্মান পাওয়ায় খুশি নামখানা বাসি।