শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

তৃণমূলের অবস্থান বিক্ষোভকে কটাক্ষ বিজেপির

News Sundarban.com :
আগস্ট ৬, ২০২৩
news-image

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে রবিবার রাজ্যের ব্লকে-ব্লকে বিক্ষোভ তৃণমূলের। হাজির রাজ্যের মন্ত্রীরাও। আর প্রতিবাদ মঞ্চ থেকে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়াল তৃণমূল নেতৃত্ব। যার পালটা কটাক্ষ করে বিজেপি। তৃণমূলের অবস্থান বিক্ষোভকে ‘চোরেদের ধরনা’ বলে কটাক্ষ বিজেপির ।

 

একুশের মঞ্চে তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কর্মসূচির ঘোষণা করেছিলেন। বিজেপি নেতাদের ঘেরাও অভিযান। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, আগামী ৫ আগস্ট কোচবিহার থেকে কাকদ্বীপ যত বিজেপি নেতাকর্মী আছেন, তাঁদের বাড়ির বাইরে ঘেরাও অভিযান করবেন তৃণমূল কর্মীরা। ব্লক স্তর থেকে শুরু করে বুথ স্তর পর্যন্ত, ছোট, বড়, মেজো সব বিজেপি নেতার বাড়ি ঘেরাও করা হোক। অভিষেকের বক্তব্য ছিল, ওই বিজেপি নেতার বাড়ির কোনও বয়স্ক সদস্য থাকলে তাঁরা যাতায়াত করতে পারবেন। কিন্তু ওই বিজেপি নেতা যেন বাড়ি থেকে বেরতে না পারে। কোচবিহার থেকে কাকদ্বীপ ৩৪১ ব্লকের সব বুথে এই কর্মসূচি চেয়েছিলেন তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক। যদিও পরে সেই কর্মসূচি কিছুটা শুধরে দেন তৃণমূল সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানান, অভিষেক যে কর্মসূচির কথা বলেছে, সেটা আমি বলব শুধু ব্লক স্তরেই করো। বিজেপি নেতাদের বাড়ি থেকে অন্তত ১০০ মিটার দূরত্ব রেখে করো। যাতে যাতায়াতে অসুবিধা হয়। যাতে কেউ বলতে না পারে আমাদের হ্যারাস করা হয়েছে।

যদিও তৃণমূলের এই কর্মসূচিকে কটাক্ষ করেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর খোঁচা, “আজ চোরেরা ধরনায় বসেছে। নরেন্দ্র মোদী কাউকে বঞ্চনা করে না। এদিন বাগডোগরা বিমান বন্দরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, চোরের দলেরা আজ ধর্নায় বসেছেন কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনা কথা বলে। তাঁরা বলেন বৈমাত্রিক আচরণ করছেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁদের উচিত দেশের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিবস পালন করা। প্রধানমন্ত্রী রাজনীতি নয়, রাজধর্ম পালন করে উত্তরপ্রদেশের পর রেল দফতরের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের ৩৭টি রেল স্টেশনে প্রায় ২৪হাজার কোটি টাকা খরচ করে আধুনিকরণ করার শুভ সূচনা করেছেন।