বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গনেশনগরে বেহাল নদী বাঁধ, আতঙ্কিত এলাকা বাসী

News Sundarban.com :
জুলাই ৪, ২০২৩
news-image

শিল্পা মাইতি, নামখানা: ইয়াশের সময় ভেঙে গিয়েছিল দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার নামখানা ব্লকের নারায়ণপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের পশ্চিম গণেশ নগরের প্রায় ৫০০ মিটার নদী বাঁধ।

এরপর মাটি ফেলে অস্থায়ীভাবে নদী বাঁধের মেরামত করা হয়। সেই অস্থায়ী নদী বাঁধটিরও এখন বেহাল অবস্থা। যে কোনো মুহূর্তে এই নদী বাঁধটি ভেঙে প্লাবিত হতে পারে গ্রাম, এমনটাই আশঙ্কা করছেন গ্রামবাসীরা। এ বিষয়ে গ্রামবাসীরা জানান, ইয়াশের সময় এই নদী বাঁধটি ভেঙে নোনা জলে প্লাবিত হয়েছিল গ্রাম। এরপর অস্থায়ীভাবে নদী বাঁধটির মেরামত করা হয়। আর সেই ভাবেই থেকে গিয়েছে বাঁধটি। নদীর ঢেউ লেগে লেগে এখন বাঁধটির আরও বেহাল অবস্থা।

বর্তমান বর্ষাকাল চলছে, সামনে পূর্ণিমা ও অমাবস্যার ভরা কটাল রয়েছে, কিভাবে কাটবে দিন আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন গ্রামবাসীরা। তবে এবিষয়ে বিজেপি নেতা সত্যব্রত গিরি জানান, “কেন্দ্র সরকার সুন্দরবনের জন্য যে পরিমাণ টাকা পাঠায়, সেই টাকার সঠিক ব্যবহার করা হলে, সুন্দরবন অঞ্চলের নদী বাঁধের অবস্থা এই রকম বেহাল থাকতো না। ইয়াশের সময়ে ওই নদী বাঁধটি ভেঙ্গে গিয়েছিল। সেই সময় অস্থায়ীভাবে মেরামত করা হয়েছিল। এরপর এই নদী বাঁধটি স্থায়ীভাবে মেরামত করার জন্য, এলাকাবাসীরা বিভিন্ন দপ্তরে জানিয়েছিলেন, কিন্তু কোন সুরাহা হয়নি।”

অন্যদিকে নামখানার তৃণমূল নেতা ধীরেন দাস জানান, তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। কেন্দ্রীয় সরকার কোন টাকা দেয়নি। সুন্দরবনের নদী বাঁধ মেরামত করার দায় শুধু রাজ্য সরকারের নয়, কেন্দ্রীয় সরকারেরও রয়েছে। সুন্দরবন অঞ্চলের পুরো নদী বাঁধ কংক্রিটের তৈরি করার জন্য, রাজ্য সরকার কেন্দ্র সরকারের কাছে ১০ হাজার কোটি টাকার একটি প্রকল্প পাঠিয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্র সরকার সেই প্রকল্পটিকে উপেক্ষা করেছে, একটিও টাকা বরাদ্দ করেনি। বর্তমান যে নদী বাঁধ গুলি মেরামত করা হচ্ছে, রাজ্য সরকার নিজস্ব তহবিল থেকে করছে। ভোটের মুখে মিথ্যা অপপ্রচার করার জন্য বিজেপি এসব কথা বলছে।