শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

পাঁচিল টপকে তৃণমূল নেতা কে আটক করলো পুলিশ

News Sundarban.com :
জুন ১৫, ২০২৩
news-image

সুভাষ চন্দ্র দাশ, ক্যানিং – ছিলেন জাতীয় কংগ্রেস নেতা। এমনকি এআইসিসি’র সদস্য। পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে পঞ্চায়েত সমিতি,জেলাপরিষদ, বিধানসভা এমন কি লোকসভা নির্বাচনে তাঁর প্রতিদ্বন্দিতা করার অভিজ্ঞতা রয়েছে।কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল নেতা পরেশরাম দাসের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে প্রবেশ করেছিলেন।পরবর্তী সময়ে তৃণমূল নেতা শৈবাল লাহিড়ীর ঘনিষ্ট হয়ে পরেশরাম দাসের সঙ্গ ত্যাগ করেন অর্ণব।

গত বিধানসভা নির্বাচনের ২২ দিন আগে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন।বিজেপির প্রার্থী হয়ে পরেশরাম দাসের বিরুদ্ধে লড়াই করে পরাজিত হন অর্ণব।তিনি তৃণমূল নেতা শৈবাল লাহিড়ীর ঘনিষ্ট।

পঞ্চায়েত নির্বাচন ঘোষণা হতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল ক্যানিং।বুধবার ক্যানিং শহর রণক্ষেত্রের চেহারা ধারণ করে।শুরু হয় তৃণমূল বনাম তৃণমূলের লড়াই।নেতৃত্বে ছিলেন শৈবাল লাহিড়ী ও অর্ণব রায়।ঘটনাস্থলে মুড়ি মুড়কির মতো বোমা পড়ে। চলে গুলি।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠি চালায়।তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা পাল্টা পুলিশ কে ইট ছুঁড়ে মারে।ঘটনায় আহত হন বেশকিছু তৃণমূল কর্মী সমর্থক, ক্যানিংয়ের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দিবাকর দাস সহ পাঁচজন পুলিশ কর্মী।গুলিতেও দুজন আহত হয়।সেই ঘটনায় উত্তাপের পারদ চড়তেই থাকে।

ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ অর্ণব রায় কে আটক করে জিঞ্জাসাবাদ শুরু করেছে।অর্ণব রায় কে আটক করতে পুলিশ কে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়। বাড়ির পাঁচিল টপকে তাঁকে আটক করে ক্যানিং থানার পুলিশ। চলছে জিঞ্জাসাবাদ।