শনিবার, ২রা জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সুন্দরবনের নামখানা ব্লকের নদী বাঁধ পরিদর্শনে এলেন দিলীপ ঘোষ

News Sundarban.com :
মে ২৯, ২০২২
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, নামখানা : সামনেই বর্ষাকাল। এমত অবস্থায় সুন্দরবনের মানুষজন কেমন আছেন। সুন্দরবনের নদী বাউন্ডারিগুলির কি অবস্থায় রয়েছে। এইসব দেখতে জেলা সফরে ছুটে আসেন লোকসভার সদস্য দিলীপ ঘোষ। আজ শনিবার প্রত্যন্ত সুন্দরবনের নামখানা ব্লকের নদীবাঁধ পরিদর্শনে এলেন পশ্চিমবঙ্গের ভারতীয় জনতা পার্টির প্রাক্তন সভাপতি তথা লোকসভার সদস্য দিলীপ ঘোষ। তিনি এসে দেবনগর দক্ষিণপাড়া চিনাই নদীবাঁধ এবং হাতানিয়া দোয়ানিয়া নদীর বাঁধ পরিদর্শন করেন। তিনি খতিয়ে দেখেন নদী বাঁধের আসল চেহারা। তারপর তিনি কাকদ্বীপের উদ্দেশ্যে রওনা হন।

আম্ফান, বুলবুলের মতো যে সমস্ত সুপার সাইক্লোন গুলো সুন্দরবন বাসির একে একে স্বপ্নকে ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে, আজ তার কারন দেখতে ছুটে এসেছিলেন তিনি। পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে সেই সব জায়গায় সরাসরি গিয়ে ঘুরে দেখেন। তিনি দেখলেন বেশ কিছু জায়গায় নদী বাঁধের করুন অবস্থা।

এই প্রসঙ্গে দীলিপবাবু বলেন, ‘সুন্দরবনের বেশিরভাগ জায়গায় নদী বাঁধ গুলি দুর্বল অবস্থায় রয়েছে। সুন্দরবনের নদী বাঁধ মেরামত না করলে সুন্দরবন বাসিকে এমনকি সুন্দরবনের মানচিত্র কে রক্ষা করা যাবে না।’

দেবনগর দক্ষিণ পাড়ার এক স্থায়ী বাসিন্দা বলেন, ‘আমরা সুন্দরবনের মানুষজন আমরা খুব আতঙ্কে আছি। নদী বাঁধ মেরামত না হলে আমাদের বেঁচে থাকা খুব দুঃসহ।’

মথুরাপুর সাংগঠনিক জেলার যুব মোর্চার সভাপতি বিপ্লব নায়েক বলেন, ‘সুন্দরবনের ভারতীয় জনতা পার্টির শত শত কর্মীদের অনুরোধের দীলিপবাবু আজ জেলা সফরে আসেন। তিনি এসে দেখলেন সুন্দরবনের নদী বাঁধ মেরামতের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার যে কোটি কোটি টাকা খরচ করছে তার সিকিভাগও কাজ হয়নি। তাই প্রতিবছর বন্যা দেখা দিচ্ছে মানুষ হয়রানির শিকার হচ্ছেন। সরকারের সাহায্য বলতে একখানা ত্রিপল-ই যথেষ্ট এছাড়া আর কিছু জোটেনা সুন্দরবনবাসির কাছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের লড়াই সর্বদা জারি থাকবে। সুন্দরবনের মানুষ জনকে বাঁচতে হলে আগে তৃণমূল সরকারকে পরাস্ত করতে হবে। প্রথমে নদীর বাঁধ কংক্রিট বাঁধে পরিণত করতে হবে তবে এই সুন্দরবনের মানুষ ভালো ভাবে থাকতে পারবে।’