শুক্রবার, ২৭শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বাঘের আক্রমণে মৃত্যু হল মৎস্যজীবীর

News Sundarban.com :
মে ৪, ২০২২
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, সুন্দরবন – প্রত্যন্ত সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বাঘের আক্রমণে মৃত্যু হল এক মৎস্যজীবী। মৃত মৎস্যজীবীর নাম কৃষ্ণপদ মন্ডল(৫১)। তাঁর বাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগনা সুন্দরবন উপকূলীয় থানার সাতজেলিয়া ১০ নম্বর এলাকায়।ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকালে সুন্দরবনের ঝিলা জঙ্গল সংলগ্ন এলাকায়।

স্থানীয় ও বনদপ্তর সূত্রে খবর, সাতজেলিয়া থেকে আজগার আলি সরদার,বুদ্ধদেব মন্ডল,সুপদ মন্ডল কে সাথে নিয়ে কৃষ্ণপদ মন্ডল চারজন মৎস্যজীবীর একটি দল সুন্দরবনের ঝিলা ৩ নম্বর জঙ্গলে কাঁকড়া ধরতে প্রবেশ করে সোমবার সকালে। সেই সময় নদীতে ভাঁটা চলছিল।সরু নদী খাঁড়ির মধ্যে নৌকা নিয়ে জোয়ার আসার সেই জন্য অপেক্ষা করছিল।

সঙ্গে সঙ্গে কাঁকড়া মারার সমস্ত সরঞ্জাম তৈরির কাজ চলছিল নৌকার মধ্যে। এমন সময় সুন্দরবনের গভীর জঙ্গল থেকে একটি বাঘ বেরিয়ে আসে। আচমকা ঝাঁপিয়ে পড়ে মৎস্যজীবীদলের উপরে। কৃষ্ণপদ কে থাবা মেরে মুখে তুলে নিয়ে দ্রুততার সাথে পালিয়ে যায় বাঘ। সঙ্গীরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাঘ তাকে নিয়ে ততক্ষণে গভীর জঙ্গলে প্রবেশ করে। এরপর কিছুক্ষন বাঘের পিছু পিছু অন্যান্য সঙ্গীরা ধাওয়া করলেও কোনো ভাবেই তার দেহটি উদ্ধার করতে পারেনি তারা। অবশেষে স্থানীয় মৎস্যজীবীরা এসে খবর দেয় ঝিলার বনদপ্তরের অফিসে। বনদপ্তরের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলেও এখনো পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি ওই মৎস্যজীবীর দেহ।

সুন্দরবনের নদীতে এখন আপাতত মাছ কাঁকড়া ধরা প্রশাসনিকভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করা আছে। আর সেই নিষেধাজ্ঞা ভেঙে বেআইনিভাবে ঢুকে পড়ছে বহু মৎস্যজীবী। এর ফলে অহরহ ঘটছে এমন দুর্ঘটনা। নিহত মৎস্যজীবীর মাছ ধরা বা কাঁকড়া ধরার কোন সরকারি অনুমতি পত্র ছিল না বলে জানানো হয়েছে বনদপ্তর এর তরফ থেকে।