বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিশ্ব বাংলা লোগো কোন রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তির সম্পত্তি নয় : ব্রাত্য বসু

News Sundarban.com :
মার্চ ২৩, ২০২২
news-image

রাজ্যের সরকার ও সরকার পোষিত বিদ্যালয়গুলিতে প্রাক প্রাথমিক থেকে উচ্চ প্রাথমিক স্তর পর্যন্ত পড়ুয়াদের নীল সাদা ইউনিফর্ম ব্যবহারের নির্দেশের পিছনে কোন রাজনৈতিক কারন নেই বলে রাজ্য সরকার জানিয়েছে।

বিজেপি বিধায়ক শংকর ঘোষের এক অতিরিক্ত প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু মঙ্গলবার বিধানসভায় জানান,

  • গনতান্ত্রিক রীতি মেনে এই পরিবর্তনের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।
  • গুজরাট ও উত্তরপ্রদেশে ছাত্র ছাত্রীদের খয়েরি ও খাকি প্যান্ট ছিল। কিন্তু খাকি পোশাক নিদৃষ্ট একটি সংঘের।
  • বিশ্ববাংলা লোগো সরকারের প্রতীক। তা বাস্তব ও স্বপ্নের মিশেল।
  • এই বিষয় নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয়।
  • দেশের বেশ কিছু রাজ্যে স্কুল পড়ুয়াদের জন্য পোষাকবিধি লাগু হয়েছে।
  • যারা পশ্চিমবঙ্গে বসে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করছেন তাঁদের বলব দেশের অনান্য রাজ্যগুলির দিকে তাকিয়ে দেখতে।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বিধানসভায় বিবৃতি দিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা কোনও চাপিয়ে দেওয়া বিষয় নয়। বিশ্ব বাংলা লোগো কোন রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তির সম্পত্তি নয়। এটা সরকারের প্রতীক। বাংলাকে বিশ্বস্তরে উন্নীত করার একটা লক্ষ্য। আসাম, গুজরাট এমনকী উত্তরপ্রদেশেও নির্দিষ্ট স্কুল ড্রেস করা হয়েছে। সেখানে খাকি প্যান্ট করা হয়েছে। যা আমাদের সংঘের পোশাক স্মরণ করায়।

কিন্তু আমাদের এখানে বিষয়টা বঙ্গ অস্মিতার। বাঙালি নয় বঙ্গ অস্মিতা হিসেবে বিষয়টিকে দেখুন। বিষয়টিকে সংকীর্ণ রাজনৈতিক গণ্ডির মধ্যে দেখবেন না।’ব্রাত্যর দাবি, ২০১৯ সালের ৬ মার্চ বিজেপি শাসিত অসমে স্কুল পড়ুয়াদের পোষাকবিধি সুনির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়। সেই দিনই অর্ডার বার হয়।

বলা হয় প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেনী পর্যন্ত পড়ুয়াদের ইউনিফর্ম হবে গাঢ় নীল প্যান্ট ও স্কার্ট, সঙ্গে ছাই রঙের শার্ট পড়তে হবে। ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেনী পর্যন্ত পড়ুয়ারা গাঢ় নীল প্যান্ট ও স্কার্টের সঙ্গে সাদা রঙের শার্ট পড়বে।