রবিবার, ২৬শে মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

রাজ্যে শিল্প না এলেও মহিলা ও পুরুষদের অনুপ্রাণিত করতে এমএসএমই ডেভেলপমেন্ট ফোরামের সূচনা

News Sundarban.com :
মার্চ ১২, ২০২২
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: তৃতীয়বার ক্ষমতায় এসেও রাজ্যে শিল্পোন্নয়নের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি রাজ্য সরকার। ফলে বেকারত্বের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় তরুণ প্রজন্মকে রাজ্য ছেড়ে ভিন রাজ্যে পাড়ি দিতে হচ্ছে। এমএসএমইর ( মাইক্রো, স্মল ও মিডিয়াম এন্টারপ্রৈজেস) আওতায় যেসব ব্যবসায়ী রয়েছেন বা নতুন যারা ব্যবসা শুরু করতে চান, তাদের আরও অনুপ্রাণিত করতে  কলকাতায় এমএসএমই ডেভেলপমেন্ট ফোরামের নতুন টিমের সূচনা কর হল।

বৃহষ্পতিবার এই টিমের সূচনা করেন দিল্লীর এমএসএমই ডেভেলপমেন্ট ফোরামের চেয়ারম্যান রজনীশ গোয়েঙ্কা, এমএসএমই ডেভেলপমেন্ট ফোরামের সভাপতি মমতা বিনানী, ন্যাশনাল স্মল ইন্ডাস্ট্রিস কর্পোরেশন (এনএসআইসি), এমএসএম ডেভেলপমেন্ট ইন্সটিটিউটের জয়েন্ট ডিরেক্টর দেবব্রত মিত্র, এমএসএম ডেভেলপমেন্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক প্রমোদকুমার গোয়েঙ্কা, সিডবি  এসিস্টেন্ট জেনারেল ম্যানেজার সিদ্ধার্থ মন্ডল।

কেবলমাত্র কাজ পাওয়া লক্ষ্য নয়, প্রত্যেক মানুষকে নিজের পায়ে দাঁড়াতে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে আসবে এই সংস্থা বলে জানান  মমতা বিনানী। তিনি আর বলেন, ‘রাজ্যে প্রচুর পুরুষ ও মহিলা রয়েছেন, যারা এককভাবে কাজ করে লক্ষ্যে পৌঁছতে পারছেন না। তাদের জিনিস যাতে সবার নজরে আসে, সেজন্য  সঠিক বাজারে বিক্রি করতে হবে এবং দরকার পড়লে বিদেশের বাজারে পৌঁছে দিতে রাস্তা দিতেও উদ্যোগ নিতে হবে।’ পশ্চিমবঙ্গের সংস্কৃতি নিয়ে বড় মার্কেট করা যেতে পারে তা নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আবেদন করার পরিকল্পনা রয়েছে তার।

মহিলাদের স্বনির্ভরতার বিষয়ে মমতা বিনানীর মত, রাজ্যে মহিলারা প্রচুর পুতুল তৈরি করছেন। তাদের তৈরি এই পুতুলের বিদেশে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। অথচ সঠিক মূল্য পাচ্ছেন না তারা। রাজ্যের মানুষকে নতুন দিশা দিতে গ্রাম-গঞ্জ-মফস্বলে প্রচার করে নতুন ছোট ও বড় টিম তৈরি করে শিল্পকর্মকে তুলে ধরা হবে। এছাড়া এমএসএমইর বিমা নিয়েও  গ্রামাঞ্চলে প্রচার করা হবে। গভর্নমেন্ট ক্রেডিট ও মার্কেটিং সাপোর্ট বিমা।

পাশাপাশি রজনীশ গোয়েঙ্কা বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার এমএসএমইকে তুলে ধরতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। রাজ্যে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক, কমন ফেসিলিটি সেন্টার, এমএসএমই ক্লাস্টার তৈরি হয়েছে। এছাড়া জব ক্রিয়েশন সেন্টার ও স্কিল ডেভেলপমেন্ট কাজেরও ব্যবস্থা করা হবে।