মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কমলালেবুর গৌরব ফিরিয়ে আনতে জিআরইএস ম্যাপ তৈরি হবে পাহাড়ে 

News Sundarban.com :
ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২২
news-image

অরুণ কুমার ,দার্জিলিং : চা-এর পাশাপাশি দার্জিলিং পাহাড় বিখ্যাত ছিল তার কমলালেবুর জন্য। কিন্তু যত দিন যাচ্ছে দার্জিলিংয়ের কমলালেবু যেন অন্যদের থেকে পিছিয়ে পড়ছে। দার্জিলিংয়ের কমলালেবুর ফলনকে আবার আগের জায়গায় পৌঁছে দিতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের শিল্প উন্নয়ন তথা পশ্চিমবঙ্গ শিল্প পরিকাঠামো উন্নয়ন নিগম।
বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ি মৈনাক পর্যটক আবাসে আয়োজিত সভায় মিলিত হন নিগমের চেয়ারম্যান রাজীব সিনহা সহ প্রশাসনের বিভিন্ন আধিকারিক বৃন্দ।

এছাড়াও ছিলেন উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বিশেষজ্ঞ, জিটিএ আধিকারিক, সিঙ্কোনা প্লান্টেশন এর কর্মকর্তাগন।যেখানে দার্জিলিং কালিম্পং জেলার কমলালেবু উৎপাদক ও তাদের প্রতিনিধিরা যোগ দেন। এই বৈঠকে পাহাড়ের বিভিন্ন এলাকা থেকে এই সভায় যোগ দিয়েছিলেন 60 জনের বেশি কমলালেবু উৎপাদক ।

সকলের কথা শোনার পর এদিন উন্নয়ন নিগমের চেয়ারম্যান রাজীব সিনহা বলেন, দার্জিলিং কালিম্পং জেলা আক্ষরিক অর্থে কত জমিতে কত চাষে কত পরিমান কমলালেবু চাষ করছে তার একটি চিত্র তুলে ধরার লক্ষ্যে জিআইএস পদ্ধতির মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করা হবে এবং আগামী দিনে কালিম্পং এবং শিমুলবাড়ি চা বাগানের অব্যবহৃত জমিতে পরীক্ষামুলকভাবে উন্নত মানের কমলালেবুর সাপ্লিং দিয়ে চাষ করা হবে।

পাশাপাশি কারিগরি ও অন্যান্য পরামর্শমূলক সহায়তা উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পক্ষ থেকে দেওয়া হবে। এর জন্য একটি বহুমুখী তথ্য সংক্রান্ত ওয়েবসাইট তৈরি করা হবে যেখান থেকে বিভিন্ন কক্ষ তথ্য সংগ্রহ করতে পারবেন প্রশ্ন ও তার উত্তর পাবেন কৃষকদের কাছ থেকে।
এদিন তিনি বলেন, কালিম্পং এর সিঙ্কোনা প্লান্টেশন এর অব্যবহৃত জমিতে কমলালেবু চাষ করা হতে পারে বলে এই সম্ভাবনা খতিয়ে দেখার কথাও এদিন তিনি বলেন।

উত্তর বঙ্গের অন্যতম শিল্প ও বাণিজ্যের সংস্থা কনফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের সহযোগিতায় আয়োজিত এদিনের সভায় নিগমের চেয়ারম্যান রাজীব সিনহা সমস্ত সমস্যা গুলোকে খতিয়ে দেখে আগামী তিন মাসের মধ্যে একটি পরিকল্পনা খসড়া তৈরি করে তার রূপায়নের কথা বলেছেন। পাহাড়ের বিভিন্ন জায়গায় কৃষকদের নিয়ে কর্মশালা সচেতনতা শিবির করে তাদেরকে নলেজ পাওয়ার বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সহায়তা করা হবে বলে তিনি কমলা উৎপাদকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে জানিয়েছেন।

অপরদিকে দার্জিলিং কালিম্পং জেলা থেকে আসা প্রতিনিধিরা এ ধরনের সভায় থেকে নিজেদের কথা বলতে পেরে উৎসাহী হয়েছেন এবং এই আশা করছেন যে আগামী দিনে দার্জিলিং কালিম্পং এর সোনালী ফসল কমলালেবু আবার তার আগের মহিমা পুনরুদ্ধারের সক্ষম হবে।