বুধবার, ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রাঢ় দর্পণ দ্বিতীয় কবিতা সংকলন প্রকাশ অনুষ্ঠান

News Sundarban.com :
জানুয়ারি ২৮, ২০২২
news-image

নিজস্ব সংবাদদাতা, মুর্শিদাবাদ: মুর্শিদাবাদ জেলার সাহিত্য ও সংস্কৃতির ঐতিহ্য পূর্ণ একটি শহর কান্দি। এই শহরেই কিংবদন্তি সাহিত্যিক রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদীর জন্মস্থান, আবার এই কান্দি মহকুমার খোশবাসপুরের সুসন্তান হচ্ছেন সাহিত্যিক সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ।

সেই সাহিত্য- সংস্কৃতির ধারাবাহিকতাকে ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে বর্তমান প্রজন্মের নবীণ ও প্রবীণ কবি সাহিত্যিকেরা। নিয়মিতভাবে কবি-সাহিত্যিকেরা সাহিত্য সভা করে থাকেন এবং পরস্পরের মধ্যে মত বিনিময় করে থাকেন। মুর্শিদাবাদ জেলা থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় বর্তমান প্রজন্মের কবিরা এবং লেখকরা তাদের লেখা প্রকাশ করে থাকেন।

তেমনি একটি সাহিত্য সভা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দি শহরের ভার্চুয়োসোর সভাগৃহে ১৫ ই জানুয়ারি২০২২। মুর্শিদাবাদ জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শতাধিক কবি সাহিত্যিক ও শিল্পীদের উপস্থিতিতে এই সাহিত্য সভা প্রকৃত অর্থে সাহিত্য সম্মেলনে পরিণত হয়। জেলার বিশিষ্ট কবি সাহিত্যিক ও কুড়িটির বেশি পত্রিকার সম্পাদক থেকে শুরু করে সংগীতশিল্পী ও চিত্রশিল্পী উপস্থিত ছিলেন এই অনুষ্ঠানে।

রাঢ় দর্পণ দ্বিতীয় কবিতার সংখ্যার সভাপতি ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের শিক্ষারত্ন পুরস্কার প্রাপ্ত শিক্ষক মান নিয়ে গৌতম চ্যাটার্জি। পত্রিকা প্রকাশ অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সমাজসেবী গদাধর কর্মকার, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ‘ঝড় নাট্যগোষ্ঠীর’ প্রাণপুরুষ পঞ্চানন দাস, ডা: দিলীপ কুমার ভট্টাচার্য, চিত্তরঞ্জন দাস ও বিশিষ্ট বর্ষীয়ান কবি শ্যামল সরকার।

সমগ্র অনুষ্ঠানে অর্ধশতাধিক কবি সাহিত্যিক কে রাঢ় দর্পণের পক্ষ থেকে “শম্ভুচরণ হাটুই স্মৃতি সাহিত্য কবিরত্ন স্মৃতি স্মারক সম্মান” দিয়ে সম্মানিত করা হয়। সেইসঙ্গে প্রত্যেক কবি ও লেখককে ডা: দিলীপ কুমার ভট্টাচার্য্য সম্পাদিত “যোগেশ্বর সাহিত্য পত্রিকার” পক্ষ থেকে “পঙ্কজ ভূপতি স্মৃতি সাহিত্য সম্মান” প্রদান করা হয়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য রাঢ় বাংলার ৪০ বছরের ঐতিহ্য মন্ডিত পাক্ষিক সংবাদপত্র ‘রাঢ় দর্পণ’ যার বর্তমান সম্পাদক তথাগত হাটুই। অপরদিকে যোগেশ্বর সাহিত্য পত্রিকাটিও একটি প্রাচীন সাহিত্য পত্রিকা যার জন্ম ১৯৭৬ সাল।

এদিনের সমগ্র সাহিত্য অনুষ্ঠানে সকল উপস্থিত কবি-সাহিত্যিকেরা তাদের কবিতা গল্প পাঠ করেন। উপস্থিত বাচিক শিল্পীরা তাদের আবৃত্তি পাঠ করেন। বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পীরা তাদের মতো করে সঙ্গীত পরিবেশন করেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা ও পরিবেশনের দায়িত্বে ছিলেন সিদ্ধার্থ কর্মকার ও কবি শংকর দাস।