বৃহস্পতিবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

টস হেরে ব্যাট করতে নেমেই ওয়ার্নারকে সাজঘরে পাঠালেন ওকস

News Sundarban.com :
অক্টোবর ৩০, ২০২১
news-image

দুই মাস পর শুরু হতে যাচ্ছে ঐতিহাসিক অ্যাশেজ। তার আগে আজ দুবাইয়ে বিশ্বকাপের মঞ্চে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। যে জিতবে সেই সেমিফাইনালের পথে অনেকটা এগিয়ে যাবে। দু’দলই দুটি করে ম্যাচ খেলে দুটিতেই জয় পেয়েছে। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১২৫ রান তুলতেই সবকটি উইকেট হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। জিততে ইংল্যান্ডের চাই ১২৬ রান।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমেই ওয়ার্নারকে সাজঘরে পাঠালেন ওকস। বাটলারের তালুবন্দী হওয়ার আগে ২ বলে ১ রান করেন ওয়ার্নার। পরের ওভারের প্রথম বলেই জর্ডানের বলে ওকসের হাতে ধরা পড়েন স্টিভ স্মিথ। ৫ বলে ১ রান করে ক্রিজ ছাড়েন তিনি। দলীয় ১৫ রানে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে হারালো অস্ট্রেলিয়া। ক্রিস ওকসের বলে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হন তিনি। ৯ বলে ৬ রান করেন ম্যাক্সওয়েল। পাওয়ারপ্লের ৬ ওভারে বিবর্ণ অস্ট্রেলিয়া। ৩ উইকেট হারিয়ে প্রথম পাওয়ারপ্লেতে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ মাত্র ২১ রান।

সপ্তম ওভারের প্রথম বলে আদিল রশিদের বলে এলবিডব্লিউ হন মার্কাস স্টোনিস। ৪ বলে খেলেও খাতা খুলতে পারেননি তিনি। দলীয় ৫১ রানে দলের পঞ্চম উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। লিভিংস্টোনের বলে জেসন রয়ের হাতে ধরা পড়েন ম্যাথু ওয়েড। ২ বাউন্ডারির সাহায্যে ১৮ বলে ১৮ রান করেন তিনি।

১৭তম ওভারে ক্রিস ওকসের বলে জোড়া ছক্কা হাঁকান অ্যাস্টন অ্যাগার। ওভারে মোট ২০ রান ওঠে। পরের ওভারেই অ্যাস্টনকে ফেরালেন টাইমাল মিলস। ২ ছক্কার সাহায্যে ২০ বলে ২০ রান করে লিভিংস্টোনের হাতে ধরা পড়েন অ্যাগার।

দলীয় ১১০ রানে জর্ডানের বলে বেয়ারস্টোর হাতে ধরা পড়েন ফিঞ্চ। ৪টি বাউন্ডারি মেরে ৪৯ বলে ৪৪ রান করে মাঠ ছাড়েন অজি অধিনায়ক। পরের বলেই প্যাট কামিন্সের স্ট্যাম্প উড়িয়ে দেন জর্ডান।

শেষ ওভারের চতুর্থ বলে রান আউটে কাটা পড়েন অ্যাডাম জাম্পা(১)।  শেষ বলে ব্যক্তিগত ১৩ রানে মিলসের শিকার হন স্টার্ক। শুন্যরানে অপরাজিত থাকেন হ্যাজলউড।

ইংল্যান্ডের হয়ে ৩ উইকেট লুফে নেন ক্রিস জর্ডান। দুইটি করে উইকেট শিকার করেছেন ক্রিস ওকস ও টাইমাল মিলস। আদিল রশিদ ও লিভিংস্টোন নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

ইংলিশরা তাদের শেষ ম্যাচের একাদশে অপরিবর্তিত থাকলেও একটি পরিবর্তন এনেছে অস্ট্রেলিয়া। মিচেল মার্শের জায়গায় স্পেশাল স্পিনার হিসেবে সুয়োগ পেয়েছেন অ্যাশটন অ্যাগার।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এখনও ১৯ বার মুখোমুখি হয়েছে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। ১০বার জিতেছে অজিরা। ৮ বার জয় তুলে নিয়েছেন ইংলিশরা। পরিত্যক্ত হয়েছে একটি ম্যাচ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুইবারের দেখায় সমান জয় ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার। সর্বশেষ ২০১০ সালের বিশ্বকাপে দেখা হয়েছিলো তাদের। সেটিতে জয় পেয়েছিল ইংল্যান্ড।

অস্ট্রেলিয়া একাদশ: 

ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টয়নিস, ম্যাথিউ ওয়েড, অ্যাশটন অ্যাগার, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, অ্যাডাম জাম্পা, জশ হ্যাজলেউড।

ইংল্যান্ড একাদশ: 

জেসন রয়, জস বাটলার, ডেভিড মালান, জনি বেয়ারস্টো, ইয়ন মরগ্যান, লিয়াম লিভিংস্টোন, মঈন আলি, ক্রিস ওকস, ক্রিস জর্ডান, আদিল রশিদ, টাইমল মিলস।