শুক্রবার, ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চেহারার পরিচয়

News Sundarban.com :
অক্টোবর ১১, ২০২১
news-image

চেহারার পরিচয় (নেপালি কবিতা)
-নরেশ কটুওয়াল (দার্জিলিং)
অনুবাদ: বিলোক শর্মা
(মাদারিহাট, ডুয়ার্স)

পরিচয়পত্রে ধারণ করা চেহারার চেয়ে
কিছুটা আলাদা
কিছু চেহারা।

শুধু হাসির কৃশকায় বিজ্ঞাপন বগলে চেপে রেখে
অকারণে এদিক-ওদিক ঘুরে বেড়ানো
মানুষের মতো আকৃতি
যেখানে দেখি
লোক দেখানো ও আসলটা লুকানো
দু’টো ভিন্ন-ভিন্ন চেহারা।

মানুষের সৎ চেহারা থেকে যখন
চেহারা হারিয়ে যায়
তখন জন্ম নেয় ভ্রমের সাপ
তাই ভ্রমকে পোষা মানে
কোনো অনামী সংকটকেও পোষা।

অনুপস্থিতিতে যারা অপমান করে
অনুপস্থিতিতে যারা বদনাম করে
অনুপস্থিতিতে যারা কাজকর্ম শিকেয় তোলে
উপস্থিতিতে ধার নেওয়া কর্কশ হাসিতে বলে উঠে-
‘আপনাকে দেখে ভালো লাগল।’

চেহারায় পুরস্কারের মালা তুলে
গলায় তিরস্কারের বর্শা নিয়ে
কখনো মনে হয়
জাগ্রতের কুরূপ চেহারার চেয়ে
স্বপ্নের সুন্দর চেহারা
বেশিই ঘাতক হয়।

রোদ যখন কালো সানগ্লাস পরে
যখন বাতাস পরে অদৃশ্য এয়ার মাস্ক
সাদা বৃষ্টি যখন গায়ে দেয় রেনকোট
তখন আলাদা করা সত্যিই কঠিন
চেহারার পরিচয়।

যেখানে বায়ু অক্সিজেনের চেয়ে বেশী গুজব ছড়ায়
যখন রাস্তারা অচেনা কোনো অপ্রিয় গন্তব্যে নিয়ে চলে
যেখানে শিরারা রক্তের চেয়ে ঈর্ষাকে অধিক টানে
যেখানে মিষ্টি হাসিরা
পথচালনার ছলে ঢাল থেকে সজোরে ধাক্কা মারে
সেসময় চেহারার অনুমান করার অর্থ
মৃত্যুর পর আবার জেগে ওঠা
হারিয়ে গিয়ে কোথাও নিজেকে ফিরে পাওয়া
নিজের চেহারাকে নিজেই চিনতে পারা।

(কবিতা ‘অনুহারকো পরিচয়’-এর বঙ্গানুবাদ)