শুক্রবার, ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পুজোর আগেই বড় ঘোষনা বিধায়কের 

News Sundarban.com :
অক্টোবর ৩, ২০২১
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি, ক্যানিং : এলাকায় নাবালক-নাবালিকা বিয়ে বন্ধ করতে পুজোর আগেই বড় ধরনের ঘোষনা করলেন ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশরাম দাস।যাতে করে ১৮ বছরের আগে কোন ভাবে বিয়ের পিঁড়িতে কেউ যেন না বসতে পারে সেই উদ্যোগ নিলেন তিনি।

শুক্রবার একটি অনুষ্ঠান মঞ্চে বিধায়ক পরেশরাম দাস প্রকাশ্যে ঘোষনা করেন ‘এলাকায় আর একটিও নাবালক নাবালিকার বিয়ে যেন না হয়।খবর পেলেই কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার হুঁশিয়ারীও দেন তিনি। তিনি বলেন রাজ্যে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী রুপশ্রী প্রকল্পের টাকা দিচ্ছেন। এলাকায় অনেক দরিদ্র মানুষ রয়েছেন। ভালো পাত্র পেলেই অভাব অনটনের মধ্যে নিজের নাবালিকা মেয়ে কে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছেন তাড়াতাড়ি।পরবর্তী সময়ে ফলাফল হচ্ছে মারাত্মক। ফলে সেটা আর হবে না।

যদি মনে হয় অর্থনৈতিক অনটন এবং যার ফলে মেয়ে কে তড়িঘড়ি বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। একদম সেপথে পা বাড়াবেন না। সামনে ভয়ঙ্কর বিপদ রয়েছে। প্রয়োজনে আমাকেই জানান। রাজ্য সরকারের দেওয়া ২৫ হাজার টাকার পাশাপাশি এক থেকে চার লক্ষ টাকা যদি বিয়েতে খরচ হয়,আমিই দেবো। দরিদ্র পরিবার কে ভাবতে হবে না। আপনার বিধায়ক আপনার পাশেই রয়েছে। ফলে মাথায় রাখতে হবে ১৮ বছরের আগে বিয়ে নয়।’

সাধারণ দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিধায়কের এমন স্বতঃষ্ফুর্ত ঘোষণায় ক্যানিং পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের সাধারণ নাগরিকরা খুশি।

উল্লেখ্য বিগত দিনে ক্যানিং পশ্চিম বিধানসভার প্রত্যন্ত প্রান্তিক এলাকা গোপালপুর, ইটখোলা,গলাডহরা,দাঁড়িয়া, হাটপুকুরিয়া,তালদি, সহ অন্যান্য এলাকায় অসংখ্য নাবালক-নাবালিকা বিয়ে বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছে ক্যানিং চাইল্ড লাইন ও ক্যানিং থানার পুলিশ প্রশাসন। এছাড়াও গোপনে অসংখ্য নাবালক-নাবালিকা কে বিয়ে দিচ্ছেন তাদের পরিবার পরিজনেরা। সেই সমস্ত আটকাতে বিধায়কের এমন উদ্যোগ কে ভূয়সী প্রশংসা করেছে এলাকার বিশিষ্টজনেরা।

বিধায়ক পরেশরাম দাস জানিয়েছেন ‘শুধুমাত্র রাজনীতি করলে হবে না। মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে চাই। যারজন্য ব্যক্তিগত ভাবে এমন উদ্যোগ নিয়েছি।’

এখন দেখার বিষয় বিধায়কের উদ্যোগ কতটা সফলতা পায় সেটা আগামী ভবিষ্যতই বলবে।