শুক্রবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

লক্ষীর ভান্ডার ফর্ম ফিলাপ করলেন বিধায়ক পরেশরাম দাস

News Sundarban.com :
আগস্ট ২৫, ২০২১
news-image

নিজস্ব প্রতিনিধি,ক্যানিং – বুধবার সকাল থেকে মাতলা ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের মিঠাখালিতে বসেছিল দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে। ক্যাম্পে সকাল থেকে হাজার হাজার মানুষজন ভীড় করেছিলেন লক্ষীর ভান্ডার,বার্ধক্যভাতা,সহ অন্যান্য প্রকল্পে নাম নথীভুক্ত করার জন্য। এদিন সকাল থেকে সাধারণ মানুষজন লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন মাস্ক পরে। তাছাড়াও দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকে মাইকে একাধিকবার প্রচার করা হয় মাস্ক ছাড়া কোন প্রকার ফর্ম ফিলাপ করতে দেওয়া হবে না।

টাকা দিয়ে কেউ যাতে ফর্ম ফিলাপ না করেন সেদিকেও বিশেষ ভাবে নজর দেওয়া হয়।এদিন সকালে লক্ষীর ভান্ডার ফর্ম সংগ্রহ করে ফিলাপ করার জন্য হন্যে হয়ে ঘুরছিলেন রেহেনা বিবি সেখ,অপর্ণা বিশ্বাস,নমিতা মন্ডল সহ অনেক মহিলা।নিরুপায় হয়ে হতাশ হয়ে পড়েন তারা।ঠিক সেই মুহূর্তে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প পরিদর্শন করতে আসছিলেন ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশরাম দাস।মহিলারা এগিয়ে যান বিধায়কের কাছে।তারা জানতেন না তিনি পরেশরাম দাস এলাকার বিধায়ক। তারা অনুরোধ করেন লক্ষীর ভান্ডার ফর্মটি ফিলাপ করে দেওয়ার জন্য। মুহূর্তে কোন কিছু না ভেবেই বিধায়ক একে একে বেশকিছু মহিলার লক্ষীর ভান্ডার ফর্ম ফিলাপ করে দেন। হাসি ফোটে মহিলাদের মুখে।

রেহেনা সেখ বিবি জানিয়েছেন “দীর্ঘক্ষণ ফর্ম ফিলাপ করার জন্য হন্যে হয়ে ঘুরছিলাম।পরে বিধায়ক পরেশরাম দাস আমাদের ফর্ম ফিলাপ করে দিয়েছেন। আমরা জানতাম না যে তিনি বিধায়ক। তাঁর এমন মানবিক উদ্যোগ সত্যি প্রশংসা যোগ্য।’

অন্যদিকে স্থানীয় পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য বিকাশ মজুমদার জানিয়েছেন ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন মানবিক মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর বিশ্বস্থ সৈনিকরাও যে সাধারণ মানুষের পাশে থেকে কাজ করেন তার একটি নিদর্শন ক্যানিং পশ্চিমের বিধায়ক পরেশরাম দাস। তিনি সাধারণ মানুষের পাশে থেকে সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেন।’

এবিষয়ে পরেশরাম দাস জানিয়েছে ‘সাধারণ মানুষ ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। তাঁদের প্রতি আমাদের কর্তব্য রয়েছে। সেই কর্তব্য পালনের চেষ্টা করেছি মাত্র।’