মঙ্গলবার, ৫ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চরম হতাশায় ষ্টেশনের হকাররা

News Sundarban.com :
নভেম্বর ২১, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেক্স: ক্যানিং ষ্টেশনের প্রায় ১২০ জন হকার। দীর্ঘ প্রায় ২০-৩০ বছর ধরে ক্যানিং ষ্টেশনের উপর বিভিন্ন ধরনের পরসা সাজিয়ে ব্যবসা করতেন।করোনা তান্ডব শুরু হতেই বন্ধ হয়ে যায় ব্যবসা। করোনার তান্ডবে লকডাউনে চরম হতাশায় অভাব অনটনের মধ্যে দীর্ঘ প্রায় আট মাস সময় কাটিয়েছেন তাঁরা। লকডাউন উঠে যাওয়ায় গত ১১ নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছে লোকাল ট্রেন চলাচল। খুশিতে উদ্বুদ্ধ হয়ে আনন্দিত হয়েছিলেন এই সমস্ত হকাররা।পরবর্তী গত ১৮ নভেম্বর থেকে ক্যানিং ষ্টেশনের উপর নিজের দোকানপাট স্যানিটাইজড করে খুশিতে ব্যবসা শুরু করে।

ব্যবসা শুরু করলেও চরম হতায় দিন কাটাচ্ছেন তাঁরা। এমনটাই জনিয়েছেন ক্যানিং ষ্টেশনের হকার বলরাম দেবনাথ,সিকান্দর সাহানী,তারক দাসেরা।কেন এমন হতাশ জানতে চাওয়া হলে তাঁরা জানিয়েছেন “করোনা তান্ডবে লকডাউন চলায় গত ২৩ মার্চ থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আমাদের ব্যবসা লাটে ওঠে।কবে ট্রেন চালু হয় সেই অপেক্ষায় আমরা চাতকের মতো তাকিয়ে ছিলাম। দীর্ঘ প্রায় আট মাস পর লোকাল ট্রেন চালু হয়।

বিধিনিষেধ মেনে জীবীকা নির্বাহের জন্য আমরা খুশিতে পুণরায় ক্যানিং ষ্টেশনে হকারী শুরু করি। সাধারণ মানুষ বর্তমানে অত্যন্ত সচেতন। তারপর ট্রেনেও আগের মতো যাত্রী নেই। যার ফলে ষ্টেশন চত্বরে তেমন ভাবে বর্তমানে বিক্রিবাটা নেই দোকানে। ফলে আমাদের জীবন জীবিকা বড় দুর্বিষহময় হয়ে উঠেছে। আগামী দিনে যদি ভালো ব্যবসা হয় সেই অপেক্ষায় তাকিয়ে।”

যদিও হকারদের দাবী ষ্টেশন চত্বরে দোকানে বিক্রি কমেছে ঠিকই,তবে নিত্য সাধারণ রেলযাত্রীরা অত্যন্ত সচেতন হয়ে যাতায়াত করায় আগামী দিনে করোনা প্রতিহত করতে সহজ হবে। এমনটা খুবই ভালোই লক্ষণ।