বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

নামখানা ব্লকে মানুষ হাত দিয়েই খুলে দিচ্ছে পিচের রাস্তা

News Sundarban.com :
নভেম্বর ১৮, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেক্স: রাস্তা তৈরি নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠল বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে। নামখানা ব্লকের দশমাইল থেকে পাতিবুনিয়া রাস্তা তৈরি নিয়ে শুরু হয়েছে গ্রামবাসীদের মধ্যে বিক্ষোভ। ২০১৭ সালে শুরু হয়েছিল দশ মাইল থেকে পাতিবুনিয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত পীচের রাস্তা। আগে এটি সাড়ে তিন কিলোমিটার ইটের রাস্তা ছিল। সুন্দরবন ডেভেলপমেন্ট বোর্ড এবং সাগর-বকখালি ডেভেলপমেন্ট বোর্ড ইটের রাস্তাটি পিচের রাস্তা করে দেওয়ার অঙ্গীকার করেছিল সাধারণ মানুষের কাছে।
কিন্তু ইটের রাস্তা পিচের রাস্তা তৈরি করা নিয়ে দুর্নীতি এবং নিম্ন মানের সরঞ্জাম দিয়ে রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে। তাতে বারংবার সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ জানালেও কোনো কর্ণপাত করেননি এই দুই অথরিটি। শেষমেষ স্থানীয় মানুষজন কাজ বন্ধ করে এর প্রতিবাদ জানান।
এই প্রসঙ্গে নামখানাব্লক কংগ্রেস নেতা তারক মাইতি বলেন, একটি রাস্তা তৈরি করতে হলে আগে তার সিডিউল দিতে হয়। কত কিলোমিটার থেকে কত কিলোমিটার এই রাস্তা হবে তার বিবরণ দিতে হয়। কিন্তু এইসব বাদ দিয়ে আগে উদ্বোধনের নেম প্লেট বসানো হয়ে গেছে।
তাঁর দাবি, এই রাস্তা নিয়ে বিধায়ক চরম দুর্নীতি করেছে। এতে দলমত নির্বিশেষে সব দলের মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়েছে।

অন্যদিকে স্থানীয় বাসিন্দা শেখ নুর মোহাম্মদ বলেন, এই সরকার এমন রাস্তা তৈরি করছে যা মানুষ হাত দিয়েই পিচের রাস্তা খুলে দিচ্ছে। এই রাস্তার পুনর্নির্মাণ হোক।

পাশাপাশি স্থানীয় মানুষদের অভিযোগ, রাস্তা তৈরি হচ্ছে খুব ধীর গতিতে। তা নিয়ে মাঝেমধ্যেই গ্রামবাসীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন ইঞ্জিনিয়াররা।

সুন্দরবন ডেভেলোপমেন্ট বোর্ড এবং সাগর বকখালি ডেভলপমেন্ট বোর্ডের তত্ত্বাবধানে এই রাস্তার শুভ সূচনা হয়েছিল ২০১৭ সালে।
২০২০ সাল শেষ মুহূর্তেই পিচের রাস্তা নিয়ে দেখা গেল বড়োসড়ো দুর্নীতির অভিযোগ।
ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকেরই অভিযোগ,
২০২১ বিধানসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে শাসকদল চেয়েছিল যে রাস্তাতে তাপ্পি দিয়ে রাস্তার কাজ শেষ করে দেবে। কিন্তু তৃণমূল সরকারের যে চালাকি সেটা সাধারণ মানুষ ধরে ফেলেছে।
এই অভিযোগে দফায় দফায় বিক্ষোভ, অবরোধে নামেন বাসিন্দারা। এই হট্টগোলের মধ্যে থেমে গেছে রাস্তার কাজ। গ্রামবাসীদের একাংশের দাবি নিম্নমানের সরঞ্জাম দিয়ে তৈরি হচ্ছে এই সাড়ে তিন কিলোমিটারের পিচের রাস্তা। আমরা চাই সুন্দর ভাবে পরিকাঠামো মেনে তৈরি হোক সুন্দরবনের সুন্দর রাস্তা। এরপর যদি না হয় তারপর আমরা বড় সরো আন্দোলনে নামব।