শুক্রবার, ১৭ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

 নিখোঁজ গৃহবধু ও তাঁর দুই সন্তানকে উদ্ধার করে পরিবারের হাতে তুলে দিল গোসাবা থানার পুলিশ

News Sundarban.com :
সেপ্টেম্বর ৮, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্ক:  রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পুলিশ কে সম্মান জানানোর জন্য ১ সেপ্টেম্বর পুলিশ দিবস ঘোষণা করেছেন।আচমকা প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির প্রয়াণে পুলিশ দিবস অনুষ্ঠান টি বাতিল হয়ে যায়। পুলিশ দিবস অনুষ্ঠান টি অনুষ্ঠিত হবে মঙ্গলবার। আর সেই পুলিশ দিবসের আগেই ভিন রাজ্যের নিখোঁজ বছর চল্লিশ বয়সের এক গৃহবধু ও তাঁর দুই সন্তান কে উদ্ধার করে রবিবার বিকালে পরিবারের লোকজনের হাতে তুলে দিয়ে অনন্যা বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো গোসাবা থানার পুলিশ।
গত প্রায় আগে একমাস বিহারের ভগবানপুরের জাগুলিয়ার বাসিন্দা গৃহবধু কল্পনা দেবী তাঁর দুই সন্তানর অরবিন্দ ও উজ্জল কে নিয়ে স্থানীয় এক বাজারে গিয়েছিলেন। কোন রকমে পথ ভুলে সোজা ভগবানপুর ষ্টেশনে চলে আসেন। এরপর সেখান থেকে দুই সন্তানকে নিয়ে ট্রেনে উঠে পড়েন।সোজা হাওড়ায় চলে আসেন।হাওড়ায় এসে এখানে ওখানে ঘুরতে থাকেন।অবশেষে একদিন গৃহবধু সোজা চলে আসেন সুন্দরবনের প্রত্যন্ত দ্বীপ গোসাবায়। সেখানে দুই সন্তান কে নিয়ে ফুটপাথে অর্ধাহারে কখনও বা অনাহারে রাত কাটাতে থাকেন।৩ সেপ্টেম্বর ঘটনাটি নজরে আসে গোসাবা থানার পুলিশের।গোসাবা থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারী অভিজিৎ পাল গৃহবধুর সমস্ত তথ্য খুঁটিয়ে বুঝতে পারেন তিনি পথ ভুলে চলে এসেছেন।তাদের থাকা খাওয়ার ও ব্যবস্থা করেন গোসাবা থানার মানবিক পুলিশ কর্মীরা। গত ৩ সেপ্টেম্বর থেকে অভিজিৎ বাবু নিখোঁজ গৃহবধু ও তাঁর দুই সন্তানের জন্য বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর শুরু করেন। ঠিকানাও জানতে পেরে যায় এই পুলিশ আধিকারীক। তিনি তৎক্ষণাৎ বিহারের ভগবানপুরের জাগুলিয়ায় এই গৃহবধুর পরিবারের সাথে যোগাযোগ করেন।নিখোঁজ গৃহবধুর পরিবারের লোকজন আচমকা এমন খবর পেয়েই তিনজনের এক প্রতিনিধি দল তড়িঘড়ি বিহার থেকে গোসাবার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় । তারা বরিবার বিকালেই গোসাবা থানায় পৌঁছে যায়।

সেখানে গোসাবা থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারীক অভিজিৎ পাল নিখোঁজ এই গৃহবধু ও তাঁর দুই সন্তান কে তাঁর পরিবারের হাতে তুলেদেয়। দীর্ঘদিন পর পরিবারের লোকজনদের কে কাছে পেয়ে কেঁদে ফেলেন কল্পনা দেবী।তিনি বলেন আর এমন ভুল কোনদিনও করবেন না। অন্যদিকে গৃহবধুর পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন “কল্পনা এলাকার রাস্তাঘাট মোটেও চেনে না, জানেও না।বাড়ির বাইরে বেরিয়ে পথ ভুল করে দুই সন্তান কে নিয়ে হারিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু পথে রাত কাটালেও দুই সন্তানকে বুকে আগলে রেখেছে। হারিয়ে যেতে দেয়নি।তারপর পাচারকারীদের খপ্পরে পড়লে কি যে হতো!গোসাবা থানার পুলিশ কে অসংখ্য ধন্যবাদ। তাঁরা আমাদের সঠিক খবর দিয়ে নিখোঁজদের কে উদ্ধার করে আমাদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য।”
অন্যদিকে গোসাবা থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারীক অভিজিৎ পাল এতো দ্রুততার সাথে নিখোঁজ গৃহবধু কে তার পরিবারে হাতে তুলে দিতে সক্ষম হবে তা কল্পনা করতে পারেননি। তবে এই গৃহবধু ও তার দুই সন্তান কে তাদের পরিবারের হাতে তুলে দিতে পেরে হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন গোসাবা থানার আধিকারীক অভিজিৎ পাল।
অভিজিৎ বাবু জানিয়েছেন “পুলিশ হিসাবে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে কর্তব্য পালন করার চেষ্টা করেছি মাত্র।নিখোঁজ গৃহবধু ও তাঁর দুই সন্তান তার নিকট আত্মীয়স্বজনদের কাছে ফিরতে পেরেছে এটাই বড় আনন্দদায়ক ব্যাপার। ”