বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সুন্দরবনের প্রত্যন্ত গ্রামে দরিদ্রদের ব্লিচিং পাউডার ও মশারী বিতরণ

News Sundarban.com :
আগস্ট ১৯, ২০২০
news-image

বিশ্লেষণ মজুমদার , ক্যানিং –

একদিকে চলছে করোনা মহামারীর দাপট। অন্যদিকে আম্ফান কেড়ে নিয়েছে বাড়িঘর।দুইয়ের মাঝেপড়ে একটু একটু করে বাঁচার আশা নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে সুন্দরবন এলাকার দরিদ্র পরিবার গুলো।পাশাপাশি বর্ষার জন্য নতুন করে শুরু হয়েছে আর এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি।বেড়েছে মশা ও বিষধর সাপের উপদ্রব।করোনা আর আম্ফান পরবর্তী সময়ে মশা ও বিষধর সাপের উপদ্রবে বিপদের আশাঙ্কায় তটস্থ সাধারণ দরিদ্র পরিবার গুলে।এমত অবস্থায় সুন্দরবনের দরিদ্র পরিবার গুলোর কথা চিন্তা করে তাঁদের কে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য এগিয়ে এলো এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।

সুন্দরবনের কুলতলি ব্লকের চুবড়ীঝাড়া গ্রামপঞ্চায়েতের ৩ ও ৪ নম্বর ভূবনখালি,দয়ালেরমোড়,ঘটিহারানি,সিঁকিরহাট,রাধাবল্লভপুর,ক্যানিংয়ের রেদোখালি,হেড়োভাঙ্গা,নিকারীঘাট,ডাবু,গোসাবাররাঙাবেলিয়া,বাগবাগান,বাসন্তীর আনন্দাবাদ,গরানবোস,হাড়ভাঙী,ভরতগড়,পানিখালি,কুলতলি,আমঝাড়া,বয়ারসিং সহ অন্যান্য প্রত্যন্ত গ্রাম্য এলাকায় পৌঁছে গিয়ে কয়েক’শো অসহায় দুঃস্থ পরিবারের হাতে তুলে দিলেন ব্লিচিং পাউডার,টর্চলাইট,ত্রিপল এবং খাদ্যসামগ্রী।পাশাপাশি এই সমস্ত এলাকার প্রায় পঞ্চাশ জন দুঃস্থ ছাত্রছাত্রীদের হাতে শিক্ষা সামগ্রী তুলে দেয় মঠেরদিঘী পল্লি সেবাসদন।উপস্থিত ছিলেন সিষ্টারবিনা (আশাদান),ডেভিডডিকোষ্ট, গৌতমকুমার তাঁতি, অয়াসিমফিরোজ খান, খোকন মন্ডল সহ অন্যান্যরা।

মঠেরদিঘী পল্লি সেবাসদনের সম্পাদক খোকন মন্ডল বলেন “বর্ষার সময় সুন্দরবনে প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতে সাপ ও মশার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ার কারণে সাধারণ মানুষজন রয়েছেন চরম আতঙ্কের মধ্যে।এলাকায় যাতে করে সাপের উপদ্রব কমে এবং মশার দাপটে ডেঙ্গুর আবির্ভাব না ঘটে তার জন্য প্রত্যন্ত সুন্দরবনের বিভিন্ন প্রান্তের অসহায় দরিদ্র মানুষের হাতে মশারী,ব্লিচিং পাউডার সহ অন্যান্য সামগ্রী তুলে দিয়েছি।”
নুন আনতে যাঁদের পান্তা ফুরিয়ে যায় এমন অসহায় তপশিলিজাতির দরিদ্র পরিবার গুলো সাপের উপদ্রব এবং মশার হাত থেকে বাঁচতে প্রয়োজনীয় সামগ্রী পেয়ে খুশি।