মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আক্রান্ত হলেন শাসক দলের এক নেতা, অভিযোগের তীর এসইউসিআই এর দিকে

News Sundarban.com :
আগস্ট ১৯, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্ক:  শাসক দলের এক নেতা আক্রান্ত হলেন রাজ্যের অপর এক রাজনৈতিক দলের কাছে।বেধড়ক মারধোরের ঘটনায় গুরুতর জখম অবস্থায় শাসক দলের এই নেতা চিকিৎসাধীন রয়েছেন ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে।ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ক্যানিং থানার গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ধর্মতলা গ্রামে। এদিন সকালে গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যা ইউদা মন্ডলের স্বামী তথা তৃণমূল নেতা সালমান মন্ডল স্থানীয় তৃণমূল পার্টী অফিসে বসেছিলেন।

অভিযোগ এসইউসিআই দলের ১০/১২ জন কর্মী সমর্থক ধারালো অস্ত্র নিয়ে তৃণমূল পার্টী অফিসে ঢুকে পড়ে। আচমকা আক্রমণ করে বেধড়ক মারধোর করে এই তৃণমূল নেতা কে।পাশাপাশি তার ডান হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারে বলে অভিযোগ।আচমকা এমন ঘটনায় চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন তৃণমূলের এই নেতা। স্থানীয় লোকজন তার চিৎকার চেঁচামেচি শুনে দৌড়ে আসার আগেই এসইউসিআই দলের লোকজন পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন গুরুতর জখম শাসক দলের এই নেতা কে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়। অন্যদিকে প্রকাশ্য দিনের বেলায় এমন ঘটনা ঘটায় এলাকায় চরম উত্তেজনা ছড়িয়েছে। এবিষয়ে তৃণমূল নেতা সালমান মন্ডল বুধবার ক্যানিং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ।

দলের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে এসইউসিআই জেলা কমিটির সদস্য ইয়াহিয়া আখন্দ বলেন “যে ঘটনা ঘটেছে সেটা ব্যক্তিগত সমস্যা কিংবা শাসক দলের গোষ্ঠিকোন্দলের জেরে ঘটেছে। কারণ প্রতিদিনই শাসক দলের গোষ্ঠি কোন্দলে সাধারণ মানুষ জর্জরিত।নিজেরা গন্ডোগোল পাকিয়ে এসইউসিআই এর নামে বদনাম করার চেষ্টা করছে।এসইউসিআই দল উশৃঙ্খল নয় এবং মারামারীর রাজনীতি করে না।”
দলীয় গোষ্ঠিকোন্দলের কথা উড়িয়ে দিয়ে ক্যানিং ১ ব্লক তৃণমূল সহ-সভাপতি অর্ণব রায় জানিয়েছেন “গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েত দীর্ঘদিন ধরেই এসইউসিআই এর দখলে ছিল।পরিবর্তনের হাত ধরে বিগত দশ বছর তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় রয়েছে এই পঞ্চায়েতে। এসইউসিআই দল যেনতেন প্রকারে এই পঞ্চায়েতের পুনরায় ক্ষমতা ফিরে পেতে মরিয়া হয়ে তৃণমুল কংগ্রেসের নেতা কর্মীদের উপর আক্রমণ চালাচ্ছে।“