রবিবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

রাজ্যে উর্ধ্বমূখী করোনা গ্রাফ, ফের বৈঠকে মোদী-মমতা

News Sundarban.com :
আগস্ট ১০, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্ক: করোনা পরিস্থিতি এখনো উদ্বেগজনক পশ্চিমবঙ্গে।এরাজ্যের মতোই পরিস্থিতি এমন দশটি রাজ্য কে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ মঙ্গলবার ফের বৈঠকে বসছেন। সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীর নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে আগামীকাল সকালে ওই বৈঠক হওয়ার কথা। ওই বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্নাটক, উত্তরপ্রদেশ, তেলঙ্গানা, বিহার, গুজরাত ও পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীকে ডাকা হয়েছে।‘আনলক’ পর্ব শুরু হওয়ার পরে প্রধানমন্ত্রী গত ১৬ ও ১৭ জুন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। কিন্তু সেখানে বলার সুযোগ না-থাকায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বা প্রশাসনের কোনও কর্তা সেই বৈঠকে যোগ দেননি। মঙ্গলবারের ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে এই বৈঠকে অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যোগ দেবেন বলেই নবান্ন সূত্রের খবর।

প্রসঙ্গত, দিল্লিতে করোনা সংক্রমণ ব্যাপক হলেও, দিল্লির বর্তমান করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আছে বলে মনে করছে কেন্দ্র সরকার। এছাড়া দিল্লির স্বাস্থমন্ত্রক এখন নিয়ন্ত্রণে আছে কেন্দ্রের।পরিবর্তে পাঞ্জাব রাজ্যে নতুন করে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু ক্রমাগত বাড়তে থাকি তালিকায় রাখা হয়েছে এই রাজ্যটিকে। সংবাদ সূত্রে জানা গেছে, তালিকাভুক্ত ১০ টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলাদা আলাদা ভাবে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের মোট করোনা সংক্রমণ ৯৫০০০ এর গন্ডি পার করেছে , মোট মৃত্যু পার করেছে ২০০০ এর গন্ডি। মৃত্যুর গ্রাফ উর্ধমুখী রাজধানী কলকাতা সহ সংলগ্ন দুই চব্বিশ পরগনা, হাওড়া, হুগলি ও মালদহ জেলা। প্রসঙ্গত, দেশে আনলক পর্ব শুরু হবার পর গত ১৬ ও ১৭ ই জুন সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন।ইউরোপ, আমেরিকাকে সম্পূর্ণভাবে পর্যুদস্ত করে দিয়ে সম্প্রতি করোনা ভাইরাস ভারতে তার জাল বিস্তার করেছে। দিনে দিনে ব্যাপক হারে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। ইতিমধ্যেই দেশের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২২ লক্ষের গন্ডি পার করে ফেলেছে। আশঙ্কা বাড়িয়ে দিয়ে ১০ লক্ষ থেকে ২০ লক্ষে পৌঁছতে সময় লেগেছে মাত্র ৩ সপ্তাহে, আর ১৫ লক্ষ থেকে ২০ লক্ষে পৌঁছতে সময় লেগেছে মাত্র ৯ দিন।

অন্যদিকে, দেশের মোট করোনা আক্রান্ত ১০ লক্ষ পার করার পর থেকে হওয়া নতুন করে করোনা সংক্রমণের ৪২% ই এসেছে উত্তরপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটকের মতো রাজ্যগুলি থেকে। যা থেকে পরিষ্কার করোনা এখন আর শুধু উত্তর ভারতের রাজ্যগুলিতেই তার থাবা বসিয়ে নেই, হাত শক্ত করেছে দক্ষিনের রাজ্যগুলিতেও। অন্যদিকে মহারাষ্ট্র রয়েছে সংক্রমণের একেবারে চূড়োয়। যেখানে গতকাল ২৪ ঘন্টায় ১২ হাজারেরও বেশি মানুষ নতুন করে করোনা রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। দেশের অর্থনীতির অন্যতম প্রধান স্তম্ভ বলে পরিচিত এই রাজ্যগুলি করোনার সংক্রমণে দিশেহারা, বারবার ডাকতে হচ্ছে লকডাউন। ফলে মুষড়ে পড়ছে রাজ্যগুলির অর্থনীতি।এমত অবস্থায় নতুন পথের দিশা খুঁজতে ফের একবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বসছেন মোদী।