রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কোচের চাকরি গেল

News Sundarban.com :
আগস্ট ৮, ২০২০
news-image

প্রশ্নটা শুনে খুব খেপে গিয়েছিলেন তিনি। তাঁর কাছে মনে হয়েছিল, প্রশ্নটা আক্রমণাত্মক। যতটা না তাঁর প্রতি, তার চেয়েও বেশি ক্লাবের পরিচালকদের প্রতি প্রশ্নটাকে আক্রমণাত্মক মনে হয়েছিল জুভেন্টাস কোচ মরিসিও সারির কাছে।

কী প্রশ্ন? অলিম্পিক লিওঁর সঙ্গে দুই লেগ মিলিয়ে ২-২ গোলে ড্র করলেও ‘অ্যাওয়ে গোলে’র হিসেবে গতকাল চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলো থেকে বাদ পড়ে জুভেন্টাস। আগে থেকেই সারির চাকরি নিয়ে শঙ্কা ছিল। গুঞ্জন ছিল, চ্যাম্পিয়নস লিগে ভালো না করলে চাকরি যাবে সারির। এ নিয়ে প্রশ্নেই কাল ম্যাচের পর খেপে গিয়ে সারি বলেছিলেন, ‘আমার মনে হয় না এত বড় পর্যায়ের ক্লাব একটা ম্যাচের ওপর ভিত্তি করে এমন সিদ্ধান্ত নেবেন। তাঁরা পুরো মৌসুমে দলের পারফরম্যান্স পর্যালোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেবেন। এই ধরনের প্রশ্নগুলোকে আক্রমণাত্মক মনে হয় আমার কাছে। আমার প্রতি নয়, ক্লাবের পরিচালকদের প্রতি আক্রমণাত্মক।’

সারির বিশ্বাসের জোর কয়েক ঘণ্টাও টিকল না। আজই আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়ে জুভেন্টাস জানিয়ে দিয়েছে, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো-পাওলো দিবালাদের কোচের পদ থেকে সারিকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

সারি অবশ্য একটা জায়গায় সম্ভবত ভুল ভেবেছেন। শুধু কালকের ম্যাচ নয়, পুরো মৌসুম বিবেচনা করেই সম্ভবত এমন সিদ্ধান্ত জুভেন্টাস বোর্ডের। রেকর্ড টানা নবম লিগ শিরোপা জুভেন্টাসকে এনে দিয়েছেন ঠিকই সারি, কিন্তু ইতালিয়ান লিগ তো বলতে গেলে এখন জুভেন্টাসের ‘পৈত্রিক সম্পত্তি’ই হয়ে গেছে। তারওপর লিগ জিতলেও লিগে এবার অনেকগুলো ম্যাচে জুভেন্টাসের পারফরম্যান্স মন কাড়তে পেরেছে অল্পই। লিগের বাইরে ইতালির ঘরোয়া অন্য দুই টুর্নামেন্ট ইতালিয়ান কাপ ও সুপারকাপেও ব্যর্থ জুভেন্টাস। লিগ শিরোপার পরই তাই গুঞ্জন ভেসে আসে, চ্যাম্পিয়নস লিগে ভালো করতে না পারলে সারির বিদায় নিশ্চিত। তা-ই হলো।

২৪ বছর ধরে ইউরোপসেরা হওয়ার স্বপ্ন বয়ে নিয়ে চলা জুভেন্টাস চ্যাম্পিয়নস লিগের স্বপ্নেই দুই মৌসুম আগে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে নিয়ে এসেছিল। পর্তুগিজ মহাতারকার পাশে পাওলো দিবালা আছেন। গত মৌসুমে আয়াক্সে আলো ছড়ানো ডিফেন্ডার ম্যাটাইস ডি লিখটকেও এই মৌসুমে নিয়ে আসে জুভেন্টাস। রক্ষণে আগে থেকে তো বোনুচ্চি-কিয়েল্লিনিরা ছিলেনই। মাঝমাঠে পিয়ানিচ, মাতুইদি, রামসে, চান, বেনতাঙ্কুর, রাবিও…কার্যকর অনেক খেলোয়াড়ই আছেন। এত দারুণ সব খেলোয়াড় নিয়েও ব্যর্থ সারি।

৬১ বছর বয়সী সারির গোয়ার্তুমিকেই এর পেছনে কারণ হিসেবে দেখেন অনেকে। বল দখলে রেখে, প্রতিপক্ষকে চাপে রেখে তাঁর ‘সারিবল’ কৌশল এই দলের সঙ্গে ভালো যাচ্ছিল না, তবু সেই কৌশলই আঁকড়ে বসে ছিলেন সারি। নিজে কৌশল বদলাননি, খেলোয়াড়দেরও কৌশলের সঙ্গে পরিচিত করাতে পারেননি পুরো মৌসুমে। এমনকি লিওঁর বিপক্ষে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে হারের পরও বলেছিলেন, ‘আশা করি আগে-পরে হলেও এই কৌশলটা ওদের মাথায় ঢুকবে।’ জুভের ড্রেসিংরুম কথাটা ভালোভাবে নেয়নি বলেই শোনা যায়।

সব মিলিয়েই সারির বরখাস্ত হওয়া। তাঁর বদলে রোনালদোদের কোচ কে হবেন আগামী মৌসুমে? অনেকগুলো নামই শোনা যায়। সংবাদমাধ্যমে গুঞ্জন, লাৎসিওতে চমক দেখানো সিমোনে ইনজাগিকে বেশ মনে ধরেছে জুভেন্টাস বোর্ডের। খেলোয়াড়ি জীবনে রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়ার আগে জুভেন্টাসে আলো ছড়ানো ও বর্তমানে রিয়ালের ডাগআউটে দারুণ সফল জিনেদিন জিদানের নামও শোনা যায়। এর বাইরে এই মৌসুমেই টটেনহাম থেকে বরখাস্ত হওয়া মরিসিও পচেত্তিনোকে ঘিরে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এঁদের কারও বদলে জুভেন্টাসেরই সাবেক দুই কোচ—বর্তমানে ক্লাবহীন মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি ও বর্তমানে ইন্টার মিলানের কোচ আন্তোনিও কন্তের একজনকে ফেরানোর চেষ্টা জুভেন্টাস করতে পারে কদিন আগে গুঞ্জন শোনা গেছে।