বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে যুব তৃণমূলে ৪০ এ আউট

News Sundarban.com :
জুলাই ৩১, ২০২০
news-image

সুভাষ চন্দ্র দাশ, ক্যানিং –

যতই ভালো খেলোয়াড় হোক না কে এবার আর দীর্ঘক্ষণ মাঠে থাকা যাবে না। বয়স ৪০ হলেই একে বারে সরাসরি আউট ঘোষনা হবে।এমনই নির্দেশ সাংসদ তথা সর্বভারতীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের।সামননেই বিধানসভা নির্বাচন।আর সেই নির্বাচন পর কে পাখির চোখ করে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্যের শাসক দলের শাখা সংগঠন যুবতৃণমূল কংগ্রেস।

নির্বাচনের আগেই তাই ঘর গুছিয়ে রাজ্যে যুব তৃণমূল সংগঠনকে চাঙ্গা করতে এবার সর্বভারতীয় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সমস্ত অঞ্চল, ব্লক এমনকি জেলা কমিটিতে তরুণ ও যুবকদের সামনের সারিতে নিয়ে আসার পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিল জেলা যুব তৃণমূল নেতৃত্ব। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছেন কোনোভাবেই চল্লিশ বছরের ঊর্ধ্বে কাউকেই আর যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠনের কোন দ্বায়িত্বে রাখা যাবে না।আর সেই নির্দেশ কে মান্যতা দিয়েই বৃহস্পতি বার বিকালে ক্যানিং শহেরর বন্ধুমহল ক্লাবে যুব তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা কমিটি এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় সেই বার্তাই স্পষ্ট করে দিয়েছেন সদ্য পুনঃনির্বাচিত জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা ক্যানিং পূর্ব বিধানসভার বিধায়ক শওকাত মোল্লা। উল্লেখ্য এমনিতে জেলার ব্লক ও পুরসভা নিয়ে সাংগঠনিক সভাপতি রয়েছে ৪৪ জন,এছাড়াও জেলা কমিটির সদস্য রয়েছে ১৬৮ জন । এবার প্রতিটি ক্ষেত্রেই চল্লিশ বছরের নীচে তরুণ-যুবকদের সভাপতি ও সদস্য হিসেবে দেখা যাবে আগামী দিনগুলিতে।

এ দিনের বৈঠকে যুব তৃণমূল সংগঠনের জেলার সমস্ত কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়।আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ব্লকে ব্লকে নতুন তরুণ ও যুবদের যাদের নিজ নিজ এলাকায় গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে‘ একমাত্র তাদেরকেই চিহ্নিত করে জেলা কমিটির তরফ থেকে প্রস্তাব আকারে পাঠানো হবে সর্বভারতীয় যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতির কাছে। তারপরে সেই প্রস্তাব অনুযায়ী অনুমোদন পেলেই তারাই সভাপতির আসনে স্থলাভিষিক্ত হবেন।যদিও এই ৪০ এ কাটছাঁটে সমস্যায় পড়তে চলেছেন বেশ কিছু বয়স্ক নেতৃত্ব। একইসাথে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে জেলার কার্যকরী সভাপতির পদ বিলুপ্ত করে অনিরুদ্ধ হালদারকে সহ সভাপতি পদে আনা হবে।একই সাথে জেলা যুব কমিটির দায়িত্বে থাকা মন্দির বাজার বিধানসভা ও জয়নগর বিধানসভার দুই বিধায়ক জয়দেব হালদার ও বিশ্বনাথ দাসকে নতুন জেলা কমিটির পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হচ্ছে। যাঁরা বয়সের কারণে পদ হারাচ্ছেন তাদেরকে দলের মূল সংগঠনে সম্মানের সাথে অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে বিবেচনার আবেদন জানাবে জেলা কমিটির তরফে। এ বিষয়ে জেলার যুব সংগঠনের সভাপতি তথা ক্যানিং পূর্বের বিধায়ক শওকাত মোল্লা জানিয়েছেন ‘সংগঠনকে আরও মজবুত শক্তিশালী করতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ কে অক্ষরে অক্ষরে পালন আমরা আগামী দিনে দলের জয়ের ধারা অব্যাহত রাখব।’
এদিন এই বৈঠকে অন্যান্য বিশিষ্টদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলার কো-অর্ডিনেটর (৩) পরেশ রাম দাস সহ অন্যান্য যুব নেতৃত্ব।