বুধবার, ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চির বিদায় আমহার্স্ট স্ট্রিটের ‘ছোড়দা’ সোমেন মিত্র

News Sundarban.com :
জুলাই ৩০, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্ক:  আমহার্স্ট স্ট্রিটের ছোড়দা আর নেই। কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে বুধবার গভীর রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। কংগ্রেসীদের বক্তব্য তিনি ছিলেন গনি খান চৌধুরীর শিষ্য। ১৯৭২- ২০০৬ অধুনা শিয়ালদা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে কংগ্রেসের হয়ে অন্য কোন নাম ভাবতে হয়নি। করে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু নিজের দলকে ভুলে যাননি। তাই ফেরত গিয়েছিলেন কংগ্রেসে। বাংলা সংগঠন কে শক্ত হাতে সামলেছেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। বুধবার গভীররাতে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। গত রবিবার সেখানে ফোন করে সোমেনবাবুর স্বাস্থ্যের খোঁজও নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তারপরেই বেলভিউ নার্সিং হোমে ভর্তি করা হয় তাঁকে। গত বুধবার তাঁর ডায়ালিসিস করা হয়। শরীরের অতিরিক্ত জল বের করে দেওয়া হয়। ডায়ালিসিস হওয়ায় শরীরে দুর্বলতা ছিল। প্রদেশ কংগ্রেস সূত্রে খবর, সোমেনবাবুর কৃত্রিম হৃদযন্ত্র বসানোর কথা ছিল। বৃহস্পতিবার সকাল ৯.৩০ বেলভিউ হাসপাতাল থেকে ৩ নম্বর লোয়ার রডন স্ট্রিটে সোমেন মিত্রের বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হয় মরদেহ।১০.৩০-১২.৩০ পর্যন্ত বিধান ভবনে শায়িত থাকবে দেহ। দুপুর ১টায় বিধানসভায় নিয়ে যাওয়া হবে।

কিছুক্ষণ সেখানে রেখে আদি বাড়ি ৪৫ নম্বর আমহাস্ট স্ট্রিটে নিয়ে যিওয়া হবে।সেখান থেকে নিমতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তিনি টুইটারে লিখেছেন, প্রবীণ এবং প্রাক্তন সাংসদ সোমেন মিত্রের প্রয়াণে দুঃখিত। তার পরিবার, শুভানুধ্যায়ী, অনুগামীদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এদিন তিনি বলেছেন,সোমেন মিত্র আর নেই এটা ভাবতে পারছিনা, বাংলার একটা অধ্যায় সমাপ্ত হলো। সংগ্রাম করে, প্রতিকূলতার মোকাবিলা করে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আমার রাজনৈতিক অভিভাবক, আমাকে জনপ্রতিনিধি করার মূল কারীগর সোমেন দা কে হারিয়ে আমি দুঃখে কাতর ও বেদনাহত হলাম। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর।

এদিন মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে তিনি বলেন, সোমেন মিত্রের মৃত্যুতে আমি হতবাক। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, সোমেন মিত্রের অবদান বাংলার মানুষ সব সময় মনে করবে। তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করেছেন তিনি।
দলের এতদিনের দক্ষ নেতা ও সংগঠক তথা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের প্রয়াণে শোকবিহ্বল কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। বাংলায় সোমেন মিত্রের কাঁধে দায়িত্ব দিয়ে নিশ্চিন্ত ছিল কংগ্রেসের হাইকমান্ড। এদিন সোমেন মিত্রের প্রয়াণের খবর পেয়ে টুইটে রাহুল গান্ধি বলেন, সোমেন মিত্রের পরিবার এবং স্বজনবর্গের জন্য এই কঠিন সময়ে আমার ভালবাসা এবং সমর্থন থাকবে। আমরা ওঁনাকে ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করব।