মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বিমানের পর বন্ধ রেল চলাচল, তাও রাজ্যে উর্ধ্বমুখী করোনা গ্রাফ

News Sundarban.com :
জুলাই ২৫, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেক্স:  বিমানের পর এবার ট্রেন চলাচল। রাজ্যে ক্রমবর্ধমান করোনা সংক্রমণে লাগাম টানতে কঠোর থেকে কঠোরতর হচ্ছে রাজ্য সরকার।রাজ্য সরাকারের জারি করা সাপ্তাহিক লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে কোন বিমান কলকাতা বা বাগডোগরা বিমান বন্দরে নামা ওঠা করেনি। রাজ্য সরকারের অনুরোধে কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক এরাজ্যে বিমান চলাচল বন্ধ রেখেছে । রেল বোর্ডকেও রাজ্য সরকার লকডাউন চলাকালীন রাজ্যে যাত্রী ট্রেন না চালানোর আর্জি জানিয়েছিল। রাজ্য সরকারের আবেদন মেনে এবার সপ্তাহে লকডাউনের দিনগুলিতে রাজ্যে কোন স্পেশাল ট্রেন চলবে না বলে রেল মন্ত্রক জানিয়ে দিয়েছে। ফলে ঐ দিনগুলিতে যাত্রীদের স্টেশনে না আসার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই আজ হাওড়া থেকে চলাচলকারী সব স্পেশাল ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। আগামী বুধবার লকডাউনের দিন পূর্ব রেলের শিয়ালদা থেকে আলিপুরদুয়ারের মধ্যে চলাচলকারী এসি স্পেশাল বাতিল থাকবে বলে জানান হয়েছে। সব মিলিয়ে ঐ দিন হাওড়া ও শিয়ালদা থেকে চলাচলকারী ১২টি স্পেশাল ট্রেন বাতিল থাকবে বলে রেল জানিয়েছে।শিয়ালদহ থেকে নিউ আলিপুর দুয়ার স্পেশাল ট্রেন আগামী সোমবার ও বুধবার শিয়ালদা থেকে এবং মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার নিউ আলিপুর ডুয়ার থেকে বাতিল থাকবে। নিউ দিল্লি ও হাওড়ার মধ্যে চলাচলকারী এসি স্পেশাল মঙ্গলবার নিউ দিল্লি ও বুধবার হাওড়া থেকে বাতিল করা হয়েছে। শিয়ালদহ – ভুবনেশ্বর স্পেশাল সোমবার শিয়ালদা ও মঙ্গলবার ভুবনেশ্বর, শালিমার – পাটনা বিশেষ ট্রেন মঙ্গলবার পাটনা ও বুধবার শালিমার থেকে এবং হাওড়া – পাটনা স্পেশাল ট্রেন আগামী বুধবার বাতিল করা হয়েছে বলে পূর্ব রেল সূত্রের খবর।

এদিকে আজ রাজ্য সরকারের জারি করা সাপ্তাহিক লকডাউনের দ্বিতীয় দিনেও কলকাতা শহর ও শহরতলিতে কঠোর ভাবে লকডাউন বলবত করতে পুলিশি ততপরতা ছিল চোখে পড়ার মত। সকাল থেকেই গার্ডরেল ব্যারিকেড দিয়ে ঘরে ফেলা হয় সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ মোড়, রাস্তার সংযোগ স্থল। মানুষের অকারণে পথে বেরনো আটকাতে আগাগোড়া সক্রিয় ছিল পুলিশ। গাড়ি হোক বা দ্গিচক্রযান, এমনকি পায়ে হেঁটে বেরলেও সকলকেই পুলিশের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে। উত্তর সন্তোষ জনক হলে তবেই মিলেছে এগনোর ছাড়পত্র। নাহলে ফিরে্ যেতে হয়েছে।বড় রাস্তার পাশাপাশি অলিগলিতে জটলা আটকাতে ড্রোনের মাধ্যমে চলেচে নজরদারী।
কোথাও কোথাও পুলিশকে দেখা গিয়েছে আরও কড়া ভূমিকায়। সেখানে বিধি ভঙ্গকারীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে গাড়ি।

কলকাতা পুলিশ লকডাউন অমান্য করার জন্যআজ সকাল নটা থেকে বারোটা পর্যন্ত ২০৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। গাড়ী একটি বাজেয়াপ্ত হয়েছে। মাস্ক নাপড়ার জন্য১৮২ জনকে ও রাস্তায় থুতু ফেলার জন্য২০ জনকে গ্রেপ্তার করাহয়েছে। প্রশাসনের এত কড়াকড়ি স্বত্তেও যে সব মানুষ সচেতন হননি গ্রেপ্তারি ও গাড়ি বাজেয়াপ্ত করার ঘটনাতেই তার প্রমাণ মিলছে। অনেকেই নানা রকম অজুহাত দাঁড় করিয়ে লকডাউন ভাঙার চেষ্টা করেছেন।