বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

করোনা নিয়ে আশঙ্কার কারণ নেই, আশ্বাস মুখ্যসচিবের

News Sundarban.com :
জুলাই ১৮, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেক্স: রোনা সংক্রমণ, মৃত্যুতে রাজ্যে রোজ তৈরি হচ্ছে একের পর এক রেকর্ড। কোভিড হাসপাতালে ঠাঁই নাই অবস্থা নিয়ে সারা রাজ্যে থেকে উঠে আসছে একের পর এক অভিযোগ। তার পরেও রাজ্য সরাকারের দাবি পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সব কিছু হাতের বাইরে চলে গেছে একথা ভেবে আতঙ্কিত হওয়ার কোন কারণ নেই!

শনিবার নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা দাবি করেন সঠিক তথ্যের অভাব এবং ভুল তথ্য ছড়ানোর ফলে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বাড়ছে। করোনা মোকাবিলায় পরিকাঠামোর কোনো ঘাটতি নেই । তিনি বলেন, ‘আনলক পর্ব শুরু হওয়ার পর অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড নতুন করে শুরু হওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই সংক্রমণের হার বেড়েছে।তবে সংক্রমণ যে গতিতে ছড়াচ্ছে তার থেকে অনেক দ্রুত গতিতে রাজ্য সরকার রোগ মোকাবিলার পরিকাঠামো তৈরি করছে।তাই আতঙ্কিত হওযার কোনও কারণ নেই।’ মুখ্যসচিব জানান মূলত শহরাঞ্চলে বাড়ছে সংক্রমণ। তাই এবার কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী জেলা গুলিকে একটি ক্লাস্টার হিসাবে দেখা হবে এবং ওই সব জেলার মধ্যে পরিকাঠামোগত আদান-প্রদান চলবে। এ জন্য স্বরাষ্ট্র সচিবসহ পদস্থ আধিকারিকদের দ্বায়ীত্বে রাখা হয়েছে।

কনটেইনমেন্ট এলাকাগুলিতে বিধি-নিষেধের করাকরি থাকলেও এখনই গোটা রাজ্যের সার্বিক লকডাউন এর পরিকল্পনা নেই বলে মুখ্য সচিব জানিয়েছেন। তবে রাজ্য সরকার দৈনিক নমুনা পরীক্ষা এবং হাসপাতালে বেডের সংখ্যা বাড়তে চলেছে l তিনি বলেন , দৈনিক নমুনা পরীক্ষার বাড়িয়ে ২৫ হাজারে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।একমাসের মধ্যে সরকারি-বেসরকারি কোভিড হাসপাতালে আরো ৫ হাজার বেড বাড়ানোর পরিকল্পনার কথাও মুখ্য সচিব জানিয়েছেন। বর্তমানে রাজ্যের প্রায় ১৫ হাজার কোভিদ বেড রয়েছে।এখনো যথেষ্ট সংখ্যক বেড খালি রয়েছে বলে তার দাবি। মুখ্য সচিব বলেন এখন শহরে ৭২ শতাংশ এবং জেলায় ৩৫ শতাংশ বে ডে রোগী ভর্তি আছে।সুতরাং হাসপাতলে শয্যার অভাব নিয়ে এখনই আতঙ্কের কোন কারণ নেই। পাশাপাশি কোভিদ বেডের ওপর অপ্রয়োজনীয় চাপ কমাতে উপসর্গহীন এবং মৃদু উপসর্গ যুক্ত
রোগীদের জন্য রাজ্য সরকার হোম আইসোলেশন এ ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে বলে মুখ্য সচিব জানিয়েছেন। তিনি বলেন ক রনার উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে যারা আইসলেশনে থাকবেন তাদের ২৪ ঘণ্টা স্বাস্থ্য বিষয়ক পরিষেবা দিতে একটি হেল্পলাইনে চালু করা হচ্ছে। ১৮০০৩১৩৪৪৪২২২ নম্বরে সারা রাজ্যের মানুষ ২৪ ঘণ্টা ফোন করতে পারেন। বিশেষ করে হোম আইসোলেশনে থাকা মানুষের জন্য এটা চালু করা হয়েছে।