বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

এবার পাকাপাকি বন্ধ হতে চলেছে স্বপ্নের “মিষ্টি হাব”

News Sundarban.com :
জুলাই ৬, ২০২০
news-image

নিউজ সুন্দরবন ডেস্কঃ বন্ধ হতে চলেছে মুখ্যমন্ত্রীর আরেক স্বপ্নের প্রকল্প।একাধিক প্রচেষ্টা স্বত্তেও বহু দিন ধরে ভেন্টিলেশনে চলে যাওয়া বর্ধমানের মিষ্টি হাব বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর সাধের প্রকল্পকে বাঁচাতে খড়গপুর আইআইটির সহায়তাও নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা করা গেল না। য়ার জন্য বিশেষজ্ঞরাা পরিকল্পনার অবাবকেই দায়ী করেছেন। তাদের একাংশের মতে যে ভাবে একজনের খেয়াল খুশির বসে অপরিকল্পিত ভাবে বর্ধমানের উল্লাস মোড়ে জাতীয় সড়কের ধারে মিষ্টি হাব তৈরি করা হয়েছিল তাতে তার এই পরিণতিই প্রত্যাশিত ছিল।রাজ্য সরকারের তৎপরতা শুধু শেষের দিনটাকে বিলম্বিত করেছে। গত কয়েকমাস ধরে বন্ধ থাকার পর এবার সরকারিভাবে বন্ধ হতে চলেছে মিষ্টি হাব।

২০১৮ সালের এপ্রিলে আসানসোলের এক অনুষ্ঠান থেকে বর্ধমানের মিষ্টি হাবের উদ্বোধন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্পকে সফল করতে খরচও হয়েছিল বেশ।কিন্তু বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ধুঁকতে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্পগুলির মধ্যে অন্যতম মিষ্টি হাব। বিক্রি না হওয়ায় দোকান বন্ধ করে দিতে শুরু করেন সেখানকার ব্যবসায়ীরা। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, মূলত বিপণনের অভাবে এই প্রকল্প মার খেয়েছে। শেষ চেষ্টা করা হয়েছিল খড়গপুর আইআইটিকে দিয়ে সমীক্ষা করিয়ে। তাও শেষ রক্ষা হল না।
বর্ধমানের উল্লাস মোড়ে জাতীয় সড়কের ধারে তৈরি হওয়া মিষ্টি হাব বন্ধ করে দিতে হলেও, তা অন্যত্র গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের। জেলাশাসক বিজয় ভারতীর সূত্রে এমনটাই খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে এর জন্য বিকল্প জায়গায় সন্ধান চলেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় ব্যবসায়ী থেকে সরকারি আধিকারিক, সবাই জানাচ্ছেন, শক্তিদড়ের ল্যাংচার হাব যেভাবে গড়ে উঠেছে, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে টিকতে পারেনি মিষ্টি হাব। লোকে গাড়ি থামিয়ে শক্তিগড়ের ল্যাংচার স্বাদ নিলেও বর্ধমানের উল্লাস মোড়ে জাতীয় সড়কের ধারে দাঁড়াতে দ্বিধা বোধ করেছে। তাই সরকারি মহলে এবার আলোচনা শুরু হয়েছে, নতুন করে মিষ্টি হাব শক্তিগড়েই তৈরি করা যায় কিনা, তা নিয়ে।